কক্সবাজার

অবহেলিত জনগোষ্ঠীর জন্য উচ্চশিক্ষার সুযোগ তৈরী করছে ‘হাট খোলা’ ও ‘জয়োধ্বনি’

বাবুল মিয়া মাহমুদ : বৃহন্নলা/হিজড়া/তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী এ সমাজে এখনও অবহেলিত। আমাদের সমাজে তাদের শিক্ষার হার অত্যন্ত কম অথবা সুযোগের অভাবে ইচ্ছে থাকলেও পড়ার সুযোগ পায় না।

২০১৯ সালে হাটখোলা ফাউন্ডেশনের পরিচালক জান্নাতুল ফেরদৌস নিজ উদ্যোগে তাদের প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম চালু করেন যা প্রতি শুক্রবার ও শনিবার খুরুশকুল রাস্তার মাথায় একটি আধা পাকা স্থাপনায় নিয়মিতভাবে পরিচালিত হত। পরবর্তীতে তাদের আরো বৃহৎ পরিসরে শিক্ষা প্রদানের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবিত হয়, এ লক্ষ্যে  জান্নাতুল ফেরদৌস বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক ডঃ আনিস রহমান, নিলুফার জাহান- যুগ্ম পরিচালকের স্মরণাপন্ন হন এবং পরিচালক মহোদয় তাদের উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সদয় অনুমতি প্রদান করেন। এ অনুমোদনের প্রেক্ষিতে বৃহন্নলাদের কক্সবাজার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি করানো হয়। ১৬ অক্টোবর (শুক্রবার) বিকাল ৩টায় আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্ভোধন করা হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরোয়ার কাবেরী,
বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কাস্টমসের ডেপুটি কমিশনার সুশান্ত পাল, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ অঞ্চলিক পরিচালক শ্যাম রঞ্জন কর্মকার, কক্সবাজার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দীন।

উক্ত কার্যক্রমের সহযোগিতা করেছেন জয়োধ্বনি সেচ্ছাসেবী সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি
প্রকৌশলী হেলাল মোরশেদ সোহাগ, সাকিব, আদর ইউসুফ  ভর্তি কার্যক্রমে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছেন মোঃ নাসির উদ্দিন।