আলী সিদ্দিকীর দু’টি কবিতা

কবিতায় আঁকা চিত্রকল্প

কবিতায় হৃদয়কে বাঙময় করতে চেয়েছি
যেমন চেয়েছি তোমাকে ধারণ করতে হৃদয়ে।

প্রচলিত নিয়মের ভেতর বড়ই বেমানান তোমার প্রকাশ– অন্ধকারে সূর্যের মতো~শান্ত সমুদ্রে হঠাৎ জেগে ওঠা ঝড়ের হুঙ্কারের মতো কিংবা বনভূমি কাঁপানো
তুমুল আলোড়ন মতো।

হৃদয়ে তুমি জাগরূক না-হলে কবিতা মরুভূমি
ফোটে না হৃদয়ের ছায়াবিস্তৃত কোনো দিগন্তরেখা।

হুঙ্কার এখন বীরের শিরোপা—গুম খুন হত্যা—
দুরাচারী সময়ের পাঞ্জেরি—নিরঙ্কুশ নতজানু
তুমি বোঝোনি কাঁটাতারের নীল তরজমা—
বিজ্ঞাপনে বিকোয় দেখো রক্তে কেনা স্বাধীনতা।

শুনেছি, আছো বেশ নান্দনিক-ললিতের মিশ্রণে সুরম্য
সময়ের উজানী সুখর-স্বপ্নের অশ্বারোহী!

তোমাকে যায় না করা হৃদয়ে ধারণ স্বপ্নবিহীন—
যায় না আঁকা কবিতায় অমসৃণ সময়ের নিখুঁত চিত্রকল্প~
ফরমায়েশি প্রেমের অর্থহীন স্রোতে ফোটে না
জলের নিজস্ব ভঙ্গী~তরঙ্গিত সুর।

কবিতায় আঁকা তোমার চিত্রকল্পে হয় না রচনা
চিরকালীন স্বপ্নের সীমানাহীন সীমান্ত বন্দনা।

১৮ জুলাই, ২০২০

সময়রেখায় অগ্ন্যুৎপাত

কী অনড় অতল সময়ের এই বাকহীন বিদ্রোহ!
তুমি নিরলস বসন্ত সৌরভেই ডুবিয়ে রাখলে নাক,
হৃদয় ও যাবতীয় প্রত্যাশার উচ্চারণ!
এদিকে পাহাড় টলে যায় টালমাটাল,
ভূগর্ভে বেড়ে-ওঠা অকালকুষ্মাণ্ড লালসা দাহে পোড়ে
শতাব্দী নির্ণীত ললিতকলার শিল্পরূপ।

সহস্র যোজনায় বিম্বিত আকুলতায় ভাসে সূর্যদিন,
অনন্ত সৌরভের সীমান্তহীন সন্তরণে ভেসে যায় আমাদের অভীষ্ট সময়; তবুও সুশীল প্রত্যয়ে ঢেকে যায় স্বকালের সকল প্রত্যুষ সূর্যশীলা প্রণয়ের বিভা যায় হারিয়ে
দুষ্কাল চিহ্নিত বিদীর্ণ সময়ের নিখুঁত নিরেট সহবাসে।

সময়রেখায় রচিত হয় কালের পদচিহ্ন তোমার অন্বিত চুম্বন স্পর্শের সমুদয় শব্দোচ্চারণে, হয়তো বিপুল আয়োজনের কোনো ব্যাপক স্মারক নয়, কিংবা নয় স্বর্ণপিয়াসী দঙ্গলের কোনো রেখা; কোন রোগপল্লবিত সময়ের অবিনাশ কিংবা সুরের অবগুণ্ঠনে মৃতবৎ আলোকরাশি।

এ-কি মহামহিম নৈঃশব্দের একক রক্ষক তুমি!
নিয়ত জ্বালিয়ে রাখো আত্মরন্ধনশালা,
গুনি কতিপয় উদ্ভিন্ন সময়ের যৌবনলালসাবিদ্ধ প্রহর, আলুথালু ভাসমান শ্যাওলা সমাদৃত সময়ের স্পন্দনখচিত আঁতাতবদ্ধ রূপকল্পে রুদ্ধ তালা;
আহা কি অপরূপ করুণায় দোলে সুপ্ত হৃদয়!

১৭ জুলাই, ২০২০

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।