উখিয়ায় ইয়াবাকারবারিরা ফের সক্রিয়, এক দিনে ১ লক্ষ ৩৫ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

ফাইল ছবি

উখিয়া সংবাদদাতা : কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার সীমান্ত এলাকা দিয়ে প্রতিনিয়ত আসছে ইয়াবা। সম্প্রতি সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো: রাশেদ খান এর হত্যাকান্ডের পর থেকে ইয়াবা ও মাদক বিরোধী অভিযানে ভাটা পড়েছে। দীর্ঘদিন আত্নগোপনে থাকা মাদককারবারিরা প্রকাশ্যে এসে পুন:রায় ইয়াবা কারবারে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। আইনশৃংখলা বাহিনী অভিযান চালিয়ে গুটিকয়েক ইয়াবার চালান আটক করতে সক্ষম হলেও বৃহৎ চালানগুলো অনায়াসে পৌঁছে যাচ্ছে নির্দিষ্ট গন্তব্যে। এ নিয়ে সীমান্ত এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে আইনশৃংখলা বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

২ সেপ্টেম্বর (বুধবার) সকালে উখিয়ার সীমান্ত এলাকার রাজাপালং ইউনিয়নের ডেইলপাড়া, পূর্ব ডিগলিয়া, দরগাবিল, হাতিমোরা, আমতলী, চাকবৈঠা, কড়ইবনিয়ার বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায় করোনাকালিন সময়ে দীর্ঘ ৫ মাস প্রশাসনের তৎপরতার কারণে সীমান্ত দিয়ে ইয়াবা পাচার অনেকটা কমে এসেছিল। কিন্তু সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো: রাশেদ খানের হত্যাকা-ের পর থেকে আইনশৃংখলা বাহিনীর তৎপরতা ঝিমিয়ে পড়ায় শীর্ষ ইয়াবাকারবারিরা ঘরে ফিরে ফের ইয়াবা পাচারে সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

গত ১ দিনে (মঙ্গলবার) উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের বাঘঘোনা মার্কেট, পালংখালী ইউনিয়নের রহমতের বিল ও রাজাপালং ইউনিয়নের আমতলীতে র‌্যাব ও বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ১ লাখ ৩৫ হাজার ২শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত ইয়াবার মূল্য ৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা। পাচার কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই জন আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে দেশীয় অস্ত্র (রাম দা) ২টি, ১টি একনলা বন্দুক, ২ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করে র‌্যাব ও বিজিবি।

উখিয়া থানার উপপরিদর্শক মোবারক হোসেন বলেন, মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সুনিদিষ্ট তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেলে অবশ্যই অভিযান পরিচালনা করা হবে।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মর্জিনা আকতার মরজু নিকট এ বিষয়ে জানার জন্য একাধিকবার ফোন করেও রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

 

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।