খেলাধুলা

উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ঢাকাকে হারিয়ে চতুর্থ জয় চট্টগ্রামের

ম্যাচের একটি দৃশ্য। ছবি: সংগৃহীত

বিজ্ঞাপন
ক্রীড়া ডেস্ক, রাইজিং কক্স : আগে ব্যাট করে ২২১ রানের পাহাড় গড়লো চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। সেটি প্রায় টপকেই গিয়েছিল ঢাকা প্লাটুন। কিন্তু মেহেদী হাসান রানার দারুণ বোলিংয়ে ২০৫ রানে অলআউট হয় ঢাকা। চট্টগ্রাম পায় ১৬ রানের জয়। ৪ ওভারে ২৩ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন রানা। ম্যাচসেরা হয়েছেন তিনিই। আগের ম্যাচেও ২৩ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন বাঁহাতি পেসার রানা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে চট্টগ্রামকে বড় সংগ্রহ এনে দেন লেন্ডল সিমন্স, ইমরুল কায়েস ও অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ওপেনিংয়ে নামা সিমন্স ৩৬ বলে ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ৫৭ রান করেন।

ইমরুলের ব্যাট থেকে আসে ২৪ বলে ৪০ রান। ৫ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান তিনি। চোটের কারণে আগের ম্যাচগুলো খেলতে পারেননি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ফিরেই বিধ্বংসী রূপ দেখান তিনি। ২৮ বলে করেন ৫৯ রান। ৫ চারের সঙ্গে ছক্কা হাঁকান ৪টি।

২০ ওভারে ৪ উইকেটে এবারের বিপিএলের দলীয় ইনিংস ২২১ সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ঢাকার হয়ে ৫৫ রানে ২ উইকেটে নেন হাসান মাহমুদ।

২২২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করে নেমে ৮ রানে এনামুল বিজয়কে (১) হারায় ঢাকা। এরপর নিয়মিত বিরতি দিয়ে উইকেট হারাতে থাকে তাকে। তবে একপ্রান্ত আগলে রাখেন মুমিনুল হক। তামিম ইকবালের অসুস্থতায় সুযোগ পাওয়া মুমিনুল ৩৫ বলে ৫২ রানের ঝলমলে ইনিংস উপহার দেন। ৩ চার ও ২ ছক্কা হাঁকান তিনি।

দলীয় ১৪৬ রানে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে আফ্রিদির বিদায়ের পর উইকেটে আসেন ঢাকার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ৬ বলে ২৩ রান করে ম্যাচ জমিয়ে তুলেন। এরপর থিসারা পেরেরাও মারতে শুরু করেন। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ২১ রান প্র্রয়োজন ছিল ঢাকার। তবে মেহেদী হাসান রানার করা ওই ওভারে ৪ রানের বেশি তুলতে পারেননি পেরেরা। ইনিংসের শেষ বলে আউট হন তিনি। ২৭ বলে ৩ চার ও ৪ ছক্কায় ৪৭ রান করেন পেরেরা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন