ওসি মহসীনের অঢেল সম্পত্তির তথ্য পেয়েছে দুদক

অনলাইন ডেস্ক : চট্টগ্রামে বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। প্রাথমিক অনুসন্ধানে কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার নিজ নামে ও স্ত্রীদের নামে কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের তথ্য পেয়েছে দুদকের তদন্তকারীরা। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।

চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহসীনের অঢেল সম্পত্তির খোঁজ পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। তার নিজের ও স্ত্রীর নামে নানা জায়গায় এসব সম্পদ গড়ে তুলেছেন বলে দুদকের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে।

দুদকের প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, ওসি মহসিন ৭৫ লক্ষ টাকা ও তার স্ত্রীর ৭৩ লক্ষ টাকা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন। মহসীনের নিজের নামে ১৫টি প্লট, ৫০ লক্ষ টাকার সঞ্চয়পত্র, স্থাবর অস্থাবর সম্পদসহ প্রায় ২ কোটি টাকা ও তার স্ত্রীর নামে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরে প্লট, মৎস্য খামার, নির্মণাধীন ৩ তলা বাড়িসহ ২ কোটি ১৩ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য পেয়েছে দুদক।

চট্টগ্রাম জেলা ট্রাফিক পুলিশের সাবেক টিআই মীর নজরুল নজরুল ইসলামও নিজ নামে ও তার স্ত্রীর নামে ঢাকা ও চট্টগ্রামে গড়েছেন অঢেল সম্পদ। এছাড়াও চট্টগ্রাম নগর পুলিশের ট্রাফিক শাখার সাবেক পরিদর্শক আবুল কাশেম, শাহাদাতের সম্পদের অনুসন্ধান করছে করছে দুদক।

পুলিশ বাহিনীর সুনাম ক্ষুন্নকারী সদস্যদের বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান বিশিষ্টজনেরা। তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার পর প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শেষে মামলা হবে বলে জানান দুদকের আইনজীবী।

এছাড়াও অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে চট্টগ্রাম মেট্টাপলিটন পুলিশ ও জেলা পুলিশের আরো কয়েকজন কর্মকর্তার সম্পদের অনুসন্ধান করছে দুদক। সূত্র : দৈনিক  সাঙ্গু

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।