আন্তর্জাতিকপ্রধান সংবাদ

করোনাভাইরাস প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রথম ডোজ দেয়া হলো

রাইজিং কক্স ডেস্ক : বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাস প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রথম ডোজ প্রয়োগ করা হয় জেনিফার হ্যালার নামে এক নারীর দেহে। সোমবার ৩৪ বছর বয়সী দুই সন্তানের জননী জেনিফার প্রথম এই টিকা নেন।

প্রতিষেধক প্রয়োগের আগে বার্তা সংস্থা এপিকে দেয়া সাক্ষাতকারে জেনিফার বলেন, ‘আমরা সবাই অসহায় বোধ করছি। এই ভ্যাকসিন পরীক্ষায় অংশনেয়া আমার জন্য কিছু করার একটা দারুন সুযোগ।’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সিয়াটলে কাইজার পারমানেন্টে গবেষণাকেন্দ্রে ৪৫ জন সুস্থ স্বেচ্ছাসেবীর দেহে এই টিকা প্রয়োগ করা হবে।

এই টিকার উপাদান হলো, কোভিড-নাইনটিন ভাইরাসের একটি জেনেটিক কোড। আসল ভাইরাসটি থেকেই নকল করে তৈরি করা হয়েছে। এই কপিটি বিপদজনক নয়, এবং এটা মানবদেহে সংক্রমণ ঘটাতেও পারে না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ভ্যাকসিনটি, বা এরকম যে আরও কয়েকটি টিকা এখন গবেষণার পর্যায়ে আছে। তাতে আদৌ কোন কাজ হবে কিনা তা জানতে আরো অনেক মাস পর্যন্ত সময় লেগে যাবে। সারা পৃথিবী জুড়েই বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করছেন গবেষণার কাজ দ্রুততর করতে।

এমআরএনএ-১২৭৩ নামের এই টিকাটি কোভিড-নাইনটিন সংক্রমণ সৃষ্টিকারী ভাইরাস থেকে তৈরি নয়। বরং সেই ভাইরাসের জেনেটিক সংকেতের একটি অংশ কপি বা নকল করেছেন বিজ্ঞানীরা এবং সেটাই এই টিকাতে সন্নিবেশিত করা হয়েছে।

আশা করা হচ্ছে, এই টিকা প্রয়োগ করা হলে, মানবদেহের নিজস্ব রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থাকে জাগিয়ে তুলেই ভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলা করা যাবে। স্বেচ্ছাসেবকদের বাহুতে ২৮ দিন পর পর দুবার টিকাটি দেয়া হবে।

আর এ ভ্যাকসিন প্রয়োগে সফলতা এলেও বাজারে আসতে আরও এক থেকে দেড় বছর সময় লাগবে।