কামরুল বাহার আরিফের কবিতা

হেনাচত্বর
শ্রদ্ধা : জাতীয় নেতা শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান হেনা

একটা স্মৃতিস্তম্ভ, আকাশ ছোঁয়া
চারিদিকে গোলবেদী, জলের ঝরনা
ঠাণ্ডা মায়াময়।
বেদীর ঘুর্ণিপথে নানা বিভক্তিপথ দিক-দিগন্তে
পথে পথে ব্যস্ত বাহন
বাহনের ভিন্নতায় পথেরও ভিন্নতা
যাত্রীদের ভিন্নতায় পথও ভিন্ন।
পথিক কখনো দর্শক নয়, দর্শকও পথিক নয়
আবার একই পথিক দর্শক হয়,
একই দর্শক পথিক– ভিন্ন ভিন্ন সময়ে
পথিকের চোখ থাকে না, উঁচিয়ে থাকা গলাও না
শুধু ছুটে চলা গতি থাকে তার!
পথিক একদিন গতি থামিয়ে ব্যস্ত পথ ছেড়ে দিয়ে
পাশের কবরখানায় বৃক্ষস্মারকরূপে দর্শক হয়।
তাদের গলা তখন অনেক উচ্চতার বাঁশঝাড়
অনেক উচ্চতার মেহগুনি, জারুল, পারুল, শিমুল
আর, পলাশের লালফুলে শান্ত শালিকের চোখের বিস্তৃতি।
এররপর বৃক্ষস্মারকেরা,
বাতাসের নত হওয়ার প্রণতিতে দুলতে দুলতে পরম আয়েশে
স্মৃতিস্তম্ভের গোলচক্করের ছুটন্ত পথিকদের দেখতে থাকে
দেখে, আকাশের মায়ামাখা সুদীর্ঘ বেদী থেকে
বৃষ্টির মত অজস্র আশীর্বাদ নেমে আসে পথিক ও পথে!

বিমূর্ত

বিকেলের ঘর থেকে সন্ধ্যার করিডোরে
নেমে আসে নিঝুম রাত।
রাতের বাক্স থেকে জরায়ু জঠর যন্ত্রণায়
অশান্ত জলরাশি ভেদ করে
প্রতিদিন নাচতে নাচতে সূর্য ওঠে।
গুণটানা মাঝিদের মত জীবননৌকা
টানতে টানতে আবারো সূর্যাস্তের কাছে চলে যায়…
পিছনে ধূসর বেলাভূমের হৈ-হুল্লোড় জলের শব্দে ঘুমিয়ে পড়ে।
তখনই নীহারিকা আসে সাদা পাখির খসে যাওয়া পালক ‘ভরে।
আবারো নিষিদ্ধ নিঃশ্বাসস্রোতেই হারিয়ে যায়…
বালুকা বেলাভূম থেকে নীহারিকা কতদূর-
শ্যামের বাঁশি যে বেজেই চলে;
দিনের সূর্যমিছিলে সামুদ্রিক হাওয়ায় স্বপ্নের তন্দ্রায়
বিমূর্ত নীহারিকা জেগে রহে কারুকথার সাদা রুমালে…

মরুভূমি জীবনেরও দায় আছে

মরুভূমির ক্যাকটাস ও তার জলের মোহনা
আমাকে বিস্মিত করে চিরকাল
এসব কথা ভাবতে ভাবতে আমার বয়স
যখন আড়াই কুড়ি পেরিয়ে তিন কুড়ি ছুঁই ছুঁই
তখন জীবনটাই একটা খাঁ-খাঁ মরুভূমি যেনো
সেখানে অসংখ্য ক্যাকটাস আর বৃশ্চিকের বাস

আমার বুকের আবাসী এসব জীবনের দায় নিয়ে
আমি নিরন্তর খুঁজে চলি– দুষ্প্রাপ্য জলের মোহনা

রাতের গভীর অন্ধকারে ক্যাকটাসেরা
আমার কাছে জল চায়
বৃশ্চিকেরা আমার কাছে জীবন চায়
রাতের গর্ভে থাকে দিনের প্রসব যন্ত্রণা
আমি তাদের জল ও জীবনের জন্য
রাতের প্রসব যন্ত্রণার ঘাম নিংড়ে তাদের জীবনকে
আমার বুকে বাঁচিয়ে রাখি।
তারা আমার বিষকষ্ট জীবনের প্রতিরূপে
শুধু কাটা ও বিষের প্রজনন ছড়িয়ে দেয়।
রাতের ঘামের কাছে আমার যত ঋণ!

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।