বন্দর নগরী

গণপরিবহনে নারীদের যৌন হয়রানি রোধে অভিনব প্রচারণা

রাইজিং কক্স ডেস্ক : গণপরিবহনে নারীদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে অভিনব প্রচারণা শুরু করেছে যাত্রী ছাউনি নামে একটি সামাজিক সংগঠন। চট্টগ্রাম নগরির বিভিন্ন এলাকায় ও যাত্রীবাসে প্রচারণা চালিয়েছেন সংগঠনের সদস্যরা।

গণপরিবহনে চালক ও পুরুষ যাত্রীদের উদ্দেশ্যে অভিনব কিছু কাল্পনিক বক্তব্যের লিফলেট ও পোস্টার বিলি করা হয়েছে।

এসব পোস্টার ও লিফলেটে মায়ের উদ্ধৃতি দিয়ে লেখা হয়েছে- ‘বাবারে, নারীদের হয়রানি করিস না। ইতি- তোর মা’। বোনের উদ্ধৃতি দিয়ে লেখা হয়েছে- ‘ভাই, বাসের নারী যাত্রীদের দিকে তাকানোর সময় আমার কথা মনে রাখবে। ইতি- তোমার বোন।’ এছাড়া স্ত্রীর উদ্ধৃতি দিয়ে লেখা হয়েছে- ‘শুধু আমাকে না, সব নারীকে সম্মান করো। ইতি- তোমার স্ত্রী।’ মেয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে লেখা হয়েছে- ‘আব্বা, আমিও কিন্তু একদিন একা বাসে উঠবো। ইতি- তোমার মেয়ে।’ এমন অভিনব প্রচারণার পোস্টার ও লিফলেট এখন শোভা পাচ্ছে নগরের গণপরিবহনে।

গণপরিবহনে নারীদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে প্রচারণা উদ্বোধন করেন সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম।সাম্প্রতিক সময়ে গণপরিবহনে নারীদের প্রতি যৌন হয়রানির চিত্র দেখে এমন উদ্যোগ হাতে নেওয়া হয়েছে বলে জানান সংগঠনের উদ্যোক্তা ফরহাদুল ইসলাম জিসান।

ফরহাদুল ইসলাম জিসান বলেন, ‘আমরা নিয়মিত গণপরিবহনে নারীদের যৌন হয়রানির সংবাদ দেখি। বাসে নারী যাত্রী যারা উঠেন তারাওতো কারো মা, কারো বোন, কারো স্ত্রী বা কারো মেয়ে। আমরা নিজ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে যেভাবে ভাবি ঠিক একইভাবে বাসের নারী যাত্রীদের যদি ভাবি তাহলে অন্তত কারো মনে খারাপ দৃষ্টিভঙ্গি তৈরি হবে। মূলত এমন চিন্তা থেকেই পোস্টার ও লিফলেটে উদ্ধৃতিগুলো লেখা হয়েছে।’

‘গণপরিবহনে নারী হয়রানি বন্ধে আইন নয়, জনসচেতনতাই প্রধান’ শিরোনামে শনিবার (২৩ নভেম্বর) নগরের জিইসি এলাকায় প্রচারণার উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম।

গণপরিবহনে নারীদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে প্রচারণায় অংশ নেন পুলিশ কর্মকর্তা আসিফ মহিউদ্দীন।সামাজিক সংগঠন যাত্রী ছাউনির এ উদ্যোগে শামিল হয়েছিলেন সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) এসএম মোশতাক আহমদ, উপ-কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (ডিবি-দক্ষিণ) আসিফ মহিউদ্দীনসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।