বন্দর নগরীশিক্ষাঙ্গন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কোভিড-১৯ নিয়ে গবেষণা

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : কোভিড-১৯ নিয়ে গবেষণায় নিয়োজিত আছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। এই দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রীয় এবং সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে কাজ করে যাচ্ছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষকেরা। উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার এর বিশেষ আগ্রহে ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় বেশ কয়েকটি গবেষণা প্রকল্প এ মুহুর্তে পরিচালিত হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে- “কোভিড-১৯ নিয়ে জনসাধারণের সচেতনতার প্রকৃতি ও তা কার্যকর করতে বিভিন্ন পদ্ধতি উদ্ভাবন” – পরিচালনা করছেন ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. অলক পাল।

“কোভিড-১৯ এর জিনগত গঠনে বিভিন্ন রোগীর মধ্যে ভিন্নতা, বিষক্রিয়া সৃষ্টিকারী প্রোটিনের বিভিন্ন গঠন ও ভাইরাসটির উৎপত্তিগত বিশ্লেষণ” – পরিচালনায় আছেন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের ডঃ আদনান মান্নান।

“বর্তমান করোনা-ভাইরাস পরিস্থিতি বিভিন্ন দেশে, সংস্কৃতিতে মানুষকে কিভাবে প্রভাবিত করছে” – তা নিয়ে বাংলাদেশে সহযোগী হিসেবে আন্তর্জাতিক গবেষণায় কাজ করছেন মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অলি আহমেদ।

কোভিড এর অবস্থান ও বিভিন্ন এলাকায় তার প্রকোপ নির্ণয়ে কভিড ট্র্যাকার এ্যাপস উদ্ভাবন করেছেন ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আরিফ ইফতেখার মাহমুদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গবেষণাকর্ম থেকে ইতিমধ্যে দুটি গবেষণা প্রকল্প সমাপ্ত হয়েছে এবং তা শীঘ্রই আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশিত হবে বলে আশা করছেন গবেষকেরা।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন সম্মানিত শিক্ষক ড. আরিফ ইখতেখার মাহমুদ এবং ড. আদনান মান্নান বাংলাদেশ সরকারের এর পিপিই (স্বাস্থ্যসুরক্ষা পোষাক উদ্ভাবন এর মান নির্ণয়) প্রকল্পে পরামর্শক হিসেবে সহায়তা করছেন।

এছাড়াও বিআইটিআইডি তে করোনা সনাক্তকরণ দলের সাথে প্রত্যক্ষভাবে কাজ করছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এর গবেষণা শিক্ষার্থী ও শিক্ষকেরা। বাংলাদেশ সরকারের কোভিড-১৯ ডায়াগনস্টিক দলের সাথে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের আরটি পিসিআর এ প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত গবেষণা শিক্ষার্থীবৃন্দ। এর মধ্যে আছেন- আসমা সালাউদ্দিন, মোহাম্মদ ইমরান হোসেন, রক্তিম বড়ুয়া ও সৈয়দ লোকমান।

চলমান মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধের জন্য চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকদের কার্যকর এবং আরো অধিকতর গবেষণা করার মাধ্যমে দেশের তথা বিশ্বের ক্রান্তিলগ্নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.শিরীণ আখতার।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড.শিরীণ আখতার এই করোনা ভাইরাস সনাক্তকরণ দলের ব্যক্তিগত সুরক্ষার জন্য পিপিই এবং যাতায়াতের বিশেষ ব্যবস্থা নিশ্চিত করেছেন।