চবিতে বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক হলে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস এলাকায় প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক নির্মাণের কার্যক্রম শুরুর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য বাংলাদেশ হাই-টেক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম, এনডিসি’র নেতৃত্বে একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বিশেষজ্ঞ টিম চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার এর সাথে তাঁর অফিস কক্ষে ১৪ নভেম্বর সকাল ১১ টায় সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন এবং এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।

প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যবৃন্দ হলেন-বাংলাদেশ হাই-টেক কর্তৃপক্ষের অর্থ ও প্রশাসন বিভাগের পরিচালক (যুগ্মসচিব) এ এন এম সফিকুল ইসলাম, যুগ্মসচিব সৈয়দ জহুরুল ইসলাম, যুগ্মসচিব মোঃ মোস্তফা কামাল, অর্থ ও প্রশাসন বিভাগের উপ পরিচালক খাদিজা আক্তার, অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স বিভাগের উপ পরিচালক নরোত্তম পাল এবং সহকারী পরিচালক (বিনিয়োগ) শাহরিয়ার আল হাসান।

এ ছাড়াও মতবিনিময় সভায় চবি সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. কাজী এস এম খসরুল আলম কুদ্দুসী, চবি সিন্ডিকেট সদস্য ও বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নাসিম হাসান, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. রাশেদ মোস্তফা, চবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর মোঃ এমদাদুল হক ও সাধারণ সম্পাদক জনাব মনজুরুল আলম, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এস এম মনিরুল হাসান, কলেজ পরিদর্শক (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. শ্যামল রঞ্জন চক্রবর্তী, আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আবুল হোসাইন, রসায়ন বিভাগের প্রফেসর বেনু কুমার দে, নৃবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. নাসির উদ্দিন (রাহমান নাসির উদ্দিন), আইসিটি সেলের পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ খাইরুল ইসলাম, প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) ড. মোঃ আতিকুর রহমান ও সহকারী প্রক্টর অরূপ বড়ুয়া, চীফ ইঞ্জিনিয়ার আবু সাঈদ হোসেন, হিসাব নিয়ামক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ ফরিদুল আলম চৌধুরী, এস্টেট শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার মাহবুব হারুন চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

মাননীয় উপাচার্য অতিথিবৃন্দকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সবুজ ক্যাম্পাসে স্বাগত জানান। তিনি বলেন, আধুনিক বিশ্বের সাথে নিজেদের অবস্থান সুদৃঢ় করতে শিক্ষার্থীদেরকে একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে দক্ষতা অর্জন অত্যন্ত জরুরী। তাই চবি আঙিনায় প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক নির্মিত হলে একদিকে শিক্ষার্থীরা যেমন তথ্য-প্রযুক্তিতে নিজেদের জ্ঞান ভান্ডার সমৃদ্ধ করতে পারবে তেমনি এ বিশ্ববিদ্যালয়সহ এতদঅঞ্চলের একটি বৃহৎ জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের সুযোগ অবারিত হবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ বাস্তব সত্যকে উপলব্ধি করে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক স্থাপনের সম্ভাব্য সকল সুযোগ-সুবিধা প্রদানের জন্য ইতোমধ্যে ভূমি বরাদ্ধ করেছে এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে এখতিয়ারভুক্ত সকল প্রকার সুবিধা প্রদানে প্রস্তুত রয়েছে। মাননীয় উপাচার্য সম্মানিত বিশেষজ্ঞ টিমকে এ বিষয়ে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তাঁদের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।

বিশেষজ্ঞ টিমের সম্মানিত সদস্যবৃন্দ চবি ক্যাম্পাসে এসে অত্যন্ত আনন্দিত হন এবং এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা-গবেষণার মনোরম শান্তিপূর্ণ পরিবেশ অবলোকন করে মুগ্ধ হন। তাঁরা হাই-টেক পার্ক নির্মাণের ব্যাপারে চবি মাননীয় উপাচার্যের গৃহীত পদক্ষেপসমূহের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে এ বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক নির্মাণে তাঁদের পক্ষ থেকে সকল প্রকার উদ্যোগ গ্রহণ এবং সম্ভাব্য সকল সুবিধা প্রদানের দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

পরে চবি মাননীয় উপাচার্য বিশেষজ্ঞ টিমকে সাথে নিয়ে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক এলাকা পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ বাংলাদেশ সরকারের তৎকালীন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব মোস্তফা জব্বার মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দকে সাথে নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আসেন এবং ক্যাম্পাসে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্কের জন্য চবি কর্তৃক বরাদ্দকৃত ভূমি সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। সে সময় মাননীয় মন্ত্রী বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্কের জন্য চবি কর্তৃক বরাদ্দকৃত ভূমি পরিদর্শন করে অত্যন্ত সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং হাই-টেক প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দকে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। একই বছরের ২২ মে ২০১৯ তারিখ এ বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক নির্মাণের লক্ষ্যে ঢাকাস্থ আইসিটি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে এক সমঝোতা চুক্তি (MOU) স্বাক্ষরিত হয়।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।