টেকনাফপ্রধান সংবাদ

টেকনাফে সাড়ে ৬ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার, রোহিঙ্গা কারবারি নিহত

ছবি: সংগৃহীত

হুমায়ূন রশিদ, টেকনাফ : টেকনাফের জাদিমোরা সীমান্ত দিয়ে ইয়াবার বড় চালান নিয়ে অনুপ্রবেশকালে বিজিবির সাথে বন্দুকযুদ্ধে কুতুপালং ক্যাম্পের এক মাদক কারবারী নিহত হয়েছে। এই ঘটনায় সীমান্ত রক্ষী বিজিবির ৩জন জওয়ান আহত হলেও ঘটনাস্থল হতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা বোঝাই নৌকা, অস্ত্র ও বুলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

সুত্র জানায়, ১৯ জানুয়ারী রাতের প্রথম প্রহরে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া বিওপির একটি বিশেষ টহল দল মিয়ানমার হতে ইয়াবার চালান আসার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শিকল ঘেরা এলাকায় অবস্থান নেয়। নাফনদীর লালদ্বীপ হয়ে মিয়ানমার হতে আসা কয়েকজন লোক বোঝাই নৌকা বাংলাদেশ সীমান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালালে বিজিবি জওয়ানেরা চ্যালেঞ্জ ঘোষণা করেন। তখন নৌকা হতে বিজিবিকে লক্ষ্য করে চালানো স্বশস্ত্র মাদক কারবারীদের গুলিতে বিজিবির ৩জন জওয়ান আহত হলে বিজিবি সদস্যরাও সরকারী সম্পদ এবং আতœরক্ষার্থে ৫-৬মিনিট পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে নৌকায় থাকা মাদক কারবারীরা মিয়ানমার সীমান্তে পালিয়ে যাওয়ার জন্য নদীতে ঝাঁপ দেয়।

পরে পরিস্থিতি শান্ত হলে ইয়াবার চালান বোঝাই নৌকা, ১টি দেশীয় তৈরী বন্দুক, ১ রাউন্ড তাঁজা এবং ১ রাউন্ড খালি খোসা ব্যাটালিয়ন সদরে এবং গুলিবিদ্ধ এক মাদক কারবারীকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে আহত বিজিবি সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারীকে কক্সবাজার হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করে। পরে নিহত মাদক কারবারী উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ২নং ক্যাম্পের ব্লক-ডি-৪ এর বাসিন্দা মোঃ জামাল হোসনের পুত্র মোঃ আয়াস (২৫) বলে সনাক্ত করেন। পরে জব্দকৃত ইয়াবা ব্যাটালিয়ন সদরে গণনা করে ৬ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা দামের ২লাখ ২০হাজার ইয়াবা বড়ি পাওয়া যায়।

টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান (পিএসসি) সীমান্তে এই সফল অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এই বিষয়ে আইনী প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে এবং সীমান্তে মাদক দমনে বিজিবি জওয়ানেরা আরো দায়িত্বশীল হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Comment here