দেখা হউক ‘অদেখা বিজয়ের’

শুভংকর বড়ুয়া

”আমি শুনেছি ১৬ ডিসেম্বরের কথা,
এত বছর পরেও রয়েছে স্বর্ণাক্ষরে গাঁথা।”

স্মরণাতীত থেকেই বাংলাদেশ ছিল পরাধীন এবং বাঙালিরা শোষণ ও বঞ্চনার শিকার। আজ আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক। প্রায় ত্রিশ লক্ষ মানুষের আত্মহুতির বিনিময়ে আমরা আমাদের মাতৃভূমির স্বাধীনতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি।বিজয় দিবস আমাদের আত্মমর্যাদা, বীরত্ব ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক। বাঙালির বিজয়ের পথে লাখো শহিদের রক্তে রাঙা। বিজয় দিবস তাই আমাদের মনে সঞ্চার করে গভীর প্রেম। আমাদের পূর্বপুরষের আত্মত্যাগের ইতিহাস আমাদের গর্বিত করে। দৃপ্ত পদে সামনে এগিয়ে চলার প্রেরণা জোগায়।

আমাদের পূর্বপুরুষরা যেভাবে দেশের জন্য ত্যাগ স্বীকার করছে, তা থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা যারা নতুন প্রজন্ম আছি, কিছু নতুন বিজয় ছিনিয়ে আনতে অঙ্গিকার বদ্ধ হয়ে বিশুদ্ধ বাংলাদেশ তৈরি করি। চলুন দেখা যাক কেমন বিজয় আনতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে—–

১ম বিজয়:
গত এক দশকে বাংলাদেশে মাদক পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। এক সময় দেশের তরুন সমাজের মধ্যে ভারতীয় কফ সিরাফ (ফেনসিডিল) আসক্তি ছিল বড়ো সমস্যা।পরে সে স্থানটি দখল করে নেয় উত্তেজক বডি ইয়াবা। তরুন প্রজন্মকে মাদকবিরোধী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলে এবং সবাইকে সেই আন্দোলনে সম্পৃক্ত করে নতুন বিজয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে অঙ্গিকার বদ্ধ হতে হবে।

২য় বিজয়ঃ
নারী নির্যাতন বন্ধ হচ্ছে না, বরং বাড়ছে। অবলা নারী প্রতিদিনই ধর্ষণ গণধর্ষণ, অপহরণ, খুন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। নারীকে সুরক্ষা দিয়ে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে বিজয় আনি।

৩য় বিজয়ঃ
বাংলাদেশ মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সব ধর্মের মধ্যে যে সম্প্রীতি যুগ যুগ ধরে অটুট আছে, তা যেন সামনের দিনেও অটুট থাকে, তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে এগিয়ে আসতে হবে।

৪র্থ বিজয়ঃ
দুর্নীতি আমাদের উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে ব্যর্থতায় পর্যবসিত করেছে। দুর্নীতির কারণেই এদেশে ভয়াবহ বেকারত্বের সমস্যা তৈরি হচ্ছে। আমরা যারা নতুন নতুন প্রজন্ম আছি, তাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিজয় অর্জন করতে এগিয়ে আসতে হবে।
পরিশেষে বলতে চাই,
সবার প্রত্যাশা, বিশ্বসভায় আমরাও যেন সবার সামনের সারিতে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারি, যেন গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিতে পারি, অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জন পারি, অশিক্ষা থেকে মুক্ত করে একুশ শতকের অগ্রযাত্রায় শামিল হতে পারি দেশপ্রেমের কবি সুকান্ত ভট্রাচার্যের কন্ঠে উচ্চারিত দুটা কবিতার লাইন দিয়ে ইতি টানলাম-
‘সাবাস বাংলাদেশ, এ পৃথিবী
অবাক তাকিয়ে রয়;
জ্বলে-পুড়ে-মরে ছারখার
তবু মাথা নোয়াবার নয়।’

লেখক: প্রভাষক, রসায়ন বিজ্ঞান,
সরকারি বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজ,
উখিয়া, কক্সবাজার।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।