কবিতাশিল্প ও সাহিত্য

পংক্তিমালা

হাফিজ রহমান
অবশেষে সমর্পিত হবো

এক.

দুঃস্বপ্ন শেষ হলে চলে যাবো পাহাড়ের কোলে
অপরূপ নৈঃশব্দের কাছে নিজেকে বিলীন করে
শুনবো পাখির গান, পাহাড়ের গোপন কোটরে
বজ্জাত বাতাস সুড়সুড়ি দিলে অপার্থিব গান জাগে
বনমোরগ ডেকে নেচে গেলে কামোন্মত্ততায়
এসব না দেখা, নিবিষ্ট মনে শুধু নিজের অতীত ছায়ায়
জীবনের চালচিত্র নির্মোহ দেখে – সুগন্ধি স্মৃতি কিছু
তুলে নেবো, যেখানে ছড়ানো আছে তোমার স্মৃতি!

দুই.

তোমার চিহ্ন সব জড়ো করে চলে যাবো দক্ষিণ সাগর
বোশেখের ঝড়, বর্ষায় অসীম প্লাবন শরৎ শুভ্রতা
একে একে জড়ো হবে প্রথমা দ্বিতীয়া একটা জীবন
সব ছেড়ে শেষ রেখায় এক স্নিগ্ধ বসন্তে তুমি উজ্জ্বল
আজন্মের সব স্মৃতি মুছে গেলে নির্জন বিকেলে
হেঁটে যাই সন্ধ্যার আঁধারে তোমার হাত ধরে…

তিন.

তোমার হাত ধরে হেঁটে যাবো চোখের ওপারে
সেখানে শেষ নেই মায়াবী পূর্ণিমা রাত
সেখানে শেষ নেই শীতল ধূসর প্রান্তর-
অনন্তে হেঁটে গিয়ে অসীমে হারাবো
অবশেষে সমর্পিত হবো…

সিয়ামুল হায়াত সৈকত
অংশগ্রহণ

দ্রুত—নেবে আসে পরিযায়ী ঠোঁট
পাখিদের ঘরে বিদ্রোহী আত্মা!
আমার-তোমার নাম ধরে বসে
ঘন নিঃশ্বাস কড়া তোলে মৃত্তিকায়

এ এক প্রলয়ের নাম, বেনাম
নিজেকে আবৃত করে
বাদামের রঙে
মিথ্যে কাগজ—
সারাদিন বৃষ্টির ঘ্রাণ বেঁচে!

একসঙ্গে উড়ে চলে ঘুম
তোমাকে নিমন্ত্রণ
আয়োজন ভুলে খাম তুলে রেখো।

মোঃ এনামুল হক
আমি কে?

আমি অপরাজিত বীর
উন্নত যার শির,
সত্যতে স্থবির
মিথ্যার ভাঙ্গি নীড়।

আমি বিসদৃশ গর্জন
গর্হিত হুংকার
করেছি বর্জন
মিথ্যার অহংকার।

আমি অপ্রিয় সত্য
অপটু এক বাগ্মী
আমি সুন্দরে মত্ত
দুষ্টের বিরুদ্ধে অগ্নি।

আমি ব্যর্থতা
চেষ্টা সর্বোচ্চ।
এসেছে অবসন্নতা
করেছি সব তুচ্ছ।

আমি সত্যের পূজারি
নয়তো ঈপ্সিত সত্য
আমি পথের ভিখারি
তবে চেষ্টা সর্বোচ্চ।

হয়তো আমি ঝরে পড়া পুষ্প
যে হারিয়েছে সৌরভ
পরের তবে বাষ্প
এটাই আমার গৌরব।

হয়তো আমি ঝাঞ্ঝা
যন্ত্রনা অসহ্য
মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা
থাকেনা আর উহ্য।

আমি হারাতে বসা স্বপ্ন
দিনের ঝাপসা আলো
আমি আত্মগ্লানিতে মগ্ন
খুঁজে পাইনা ভালো।

তবুও আমি সত্য
প্রতিবাদ অবিরত
হোক ভাষা অকথ্য
আমি কর্মে থাকি রত।

Comment here