প্রকাশিত হয়েছে কবি মানিক বৈরাগীর কাব্যগ্রন্থ ‘ছাইস্বর্ণ অম্লজলে’

অনলাইন ডেস্ক : আগামী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে কবি মানিক বৈরাগীর কাব্যগ্রন্থ ‘ছাইস্বর্ণ অম্লজলে’। একুশে বইমেলা-২০২১ উপলক্ষ্যে প্রকাশিত ৫ পর্বে বিভক্ত এ গ্রন্থে ৭৯ টি কবিতা স্থান পেয়েছে। কবিতাগ্রন্থটি উৎসর্গ  করেছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত বাংলাদেশের মেরুদন্ডসম্পন্ন কবি মোহাম্মদ রফিককে।

চাঁদমারি বনে জোসনার প্লাবনে’, ‘ দীপ্র চেতনা পুড়ে সবুজ রশ্মিতে’, ‘ হায় ফেরারী জীবন’, ‘ পরাণ কাঁদে গহীন গাঙ্গে’, ও ‘ অবরূদ্ধ সময়ের কবিতা- ধরিত্রীমাতার আহবান’ নামক ৫টি পর্বে বিভক্ত সব মিলিয়ে উনাশিটি কবিতার সমাহারে অনন্য মাত্রায় অভিযোজিত হয়েছে। স্বোপার্জিত অভিঞ্জতা, স্বতন্ত্র মনোভঙ্গি কাব্যটিকে নিশ্চয় পাঠকের দরবারে বিশেষ মর্যাদা লাভে অভিষিক্ত করেছে।  মানুষের জীবনে খন্ড খন্ড অভিজ্ঞতার সমাবেশ। সেই সমাবেশে নানা রঙ – আনন্দ, বেদনা, সুখ ও দুঃখের অনির্বচনীয় এক অনুরণন। সময়ের ক্যানভাসে এইসব অনুরণন নানা বর্ণবিভায় উদ্ভাসিত হয়। কবির ক্ষেত্রে কোন বিবেচনা চুড়ান্ত নয়। মানব মনের বিচিত্রমুখী চেতনার সবটুকু সে ধারন করতে চায়। একই দর্শনে স্হিতি থাকা কবির ধর্ম নয়। কবি মানিক বৈরাগীর কবিতায় জীবনযাপন লক্ষ্য করা গেলেও তাঁর হাহাকার তাঁর কাছে বর্তমানের মুল্য সর্বাধিক কারন তার মধ্যে রয়েছে ভবিষ্যত নির্মাণের প্রতিশ্রুতি। কবি মানিক বৈরাগী’র কাছে অতীতের যে মুল্য তা ইতিহাসের ধাম্ভিকতার মধ্যে রয়েছে। মানিক বৈরাগী মানুষের ক্রমিক উন্নতির সম্ভাবনার আস্হাশীল। কবিকে হতে হবে বর্তমানের প্রতি দায়িত্ববান এবং ভবিষ্যতের দ্রষ্টা।
বইটি একুশে বইমেলায় আগামী প্রকাশনীর স্টল, কক্সবাজারের ইস্টিশন সহ দেশের অভিজাত বইয়ের দোকানে পাওয়া  যাবে।

মুক্তিযোদ্ধা ও সাংস্কৃতিক পরিবারের সন্তান মানিক বৈরাগী মূলত খেলাঘর আসর ও উদীচী শিল্পগোষ্টীর হাত ধরে কৈশোর বয়সেই লেখালেখি শুরু করেন। তার রচনার মধ্যে শিশুতোষ গ্রন্হঃ ‘ বন বিহঙ্গের কথা’, ‘ ইরাবতী ও কলাদান’ এটি ইংরেজী ও বার্মিজ ভাষায় প্রকাশিত হয়। তিনি সম্পাদনা করেছেন গরান ও পিতা।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।