খেলাধুলা

প্রথমবার জুটি বেঁধেই ইউএস ওপেনে চ্যাম্পিয়ন

ক্রীড়া ডেস্ক, রাইজিং কক্স : নিজেদের প্রথম জুটিতেই গ্র্যান্ড স্ল্যাম চ্যাম্পিয়ন হয়ে রেকর্ড গড়লেন লরা সিয়েগমুন্ড এবং ভেরা জোনারেভা জুটি। অন্যান্য পার্টনারের জুটি বেঁধে এর আগে গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের অভিজ্ঞতা থাকলেও চলতি ইউএস ওপেনে একেবারে আনকোরা হিসেবেই জুটি বেঁধেছিলেন জার্মান-রাশিয়ান প্লেয়ারদ্বয়। আর জুটি বেঁধেই নারীদের ডাবলস খেতাব ছিনিয়ে নিলেন সিয়েগমুন্ড-জোনারেভা।

অবাছাই এই জার্মান-রাশিয়ান জুটি ফাইনালে হারালেন চীনের জু ইফান এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিকোল মেলিকার জুটিকে।

শুক্রবার আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামে প্রতিপক্ষকে স্ট্রেট সেটে উড়িয়ে দিয়ে রূপকথার জয় ছিনিয়ে নিলেন টুর্নামেন্টের অবাছাই এই জুটি। ফাইনালে টুর্নামেন্টের তৃতীয় বাছাই চিনা-আমেরিকা জুটির বিরুদ্ধে তাদের পক্ষে ম্যাচের ফল ৬-৪, ৬-৪। বছর ছত্রিশের জোনারেভার এটি তৃতীয় মেজর ডাবলস জয়। এর আগে ২০০৬ ফ্রান্সের নাথালি ডেচির সঙ্গে জুটি বেঁধে এবং ২০১২ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে স্বদেশী সেতলানা কুজনেৎসোভার সঙ্গে জুটি বেঁধে খেতাব জিতেছিলেন এই রাশিয়ান।

অন্যদিকে ৩২ বছরের সিয়েগমুন্ডের এটিই প্রথম মেজর ডাবলস জয়। এর আগে ২০১৬ ইউএস ওপেনে মেট প্যাভিচের সঙ্গে জুটি বেঁধে মিক্সড ডাবলসে খেতাব জিতেছিলেন জার্মান মহিলা প্লেয়ারটি। কিন্তু গ্র্যান্ড স্ল্যাম ডাবলসে এটিই প্রথম খেতাব সিয়েগমুন্ডের।

উল্লেখ্য, নিউইয়র্কে চলতি গ্র্যান্ড স্ল্যাম টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই জায়ান্ট-কিলার হিসেবে প্রতিপন্ন হচ্ছিলেন এই জার্মান-রাশিয়ান জুটি। দ্বিতীয় রাউন্ডে সপ্তম বাছাই ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কা-সোফিয়া কেনিনকে হারিয়ে চমকে দিয়েছিলেন এই ডুয়ো।

এরপর কোয়ার্টার ফাইনালে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন এলিস মার্টেন্স এবং আরিনা সাবালেঙ্কাকেও টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে দেন তারা।
এদিকে, পুরুষদের ডাবলসে খেতাব জিতলেন ক্রোয়েশিয়ার মেট প্যাভিচ এবং ব্রাজিলের ব্রুনো সোয়ারেস জুটি। অবাছাই এই জুটি ফাইনালে স্ট্রেট সেটে হারিয়ে দিলেন টুর্নামেন্টের অষ্টম বাছাই নেদারল্যান্ডসের ওয়েসলি কুলহফ এবং ক্রোয়েশিয়ার নিকোলা মেকটিচ জুটিকে। মেগা ফাইনালে প্যাভিচ-সোয়ারেজ জুটি ৭-৫, ৬-৩ ব্যবধানে পরাস্ত করে প্রতিপক্ষকে।

র‍্যাংকিংয়ে পিছিয়ে থাকলেও প্রতিপক্ষের তুলনায় গ্র্যান্ড স্ল্যামের মঞ্চে অভিজ্ঞতার নিরিখে অনেকটা এগিয়ে ছিলেন ক্রোয়েশিয়া-ব্রাজিল জুটি। অন্যদিকে পুরুষ ডাবলসে কুলহফ-মেকটিচ জুটি অবতীর্ণ হয়েছিলেন প্রথমবারের জন্য। সবমিলিয়ে মেগা ফাইনালে অভিজ্ঞতাতেই বাজিমাত করে গেলেন প্যাভিচ-সোয়ারেস জুটি।