প্রধান সংবাদসারাদেশ

প্রধানমন্ত্রী ৩৯টি আন্তর্জাতিক পদক পেয়েছেন

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক আজ সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন। ছবি : সংগৃহীত

রাইজিং কক্স ডেস্ক : কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কল্যাণমুখী নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশ্বজয়ের নবতর অভিযাত্রায় এগিয়ে চলেছে। দেশ এখন অদম্য গতিতে এগিয়ে চলেছে। ধারাবাহিক সাফল্যের অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর ঝুঁড়িতে এখন আন্তর্জাতিক ৩৯টি পদক রয়েছে।

শেখ হাসিনার ৭৩তম জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে আজ সোমবার আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর রুনি মিলনায়তনে গবেষণা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর এবং উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশের রূপকার। তিনি বাঙালি জাতিকে নতুন এক আশা দেখিয়েছেন।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতুর অর্থায়ন নিয়ে অনেক ষড়যন্ত্র করেছে। সেই বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশে এসে উন্নয়নশীল দেশগুলোর সামনে বাংলাদেশের উদাহরণ তুলে ধরে বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন কীভাবে করতে হয় তা বাংলাদেশ থেকে শিখতে পারো।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক সাফল্যের কারণেই প্রধানমন্ত্রীর ঝুঁড়িতে স্থান পেল ৩৯টি পদক। এ ছাড়া মিয়ানমার সরকারের ভয়াবহ নির্যাতনে আশ্রয়হীন রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়ে বিশ্ব মহলের মনোযোগ কেড়েছেন শেখ হাসিনা। মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের অবস্থানের কারণে তিনি প্রশংসিত হচ্ছেন সারা বিশ্বে। জাতিসংঘের চলতি অধিবেশনে বিশ্ব নেতারা তাঁর এই মানবিক দৃষ্টান্তের প্রশংসা করেছেন।

মন্ত্রী নির্বাচনী ইশতেহারের কথা উল্লেখ করে বলেন, নির্বাচনী ইশতেহারে মোট ২১ অঙ্গীকারের কথা উল্লেখ রয়েছে। এর ৩ নম্বর ছিল দুর্নীতি নির্মূল করা। বঙ্গবন্ধু কন্যা নীতি ও আদর্শের সঙ্গে আপস করেন না। দেশের জনগণের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়ে তিনি এই অঙ্গীকার করেছেন সেখানে কোনো আপস নয়। ন্যায়ভিত্তিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় তিনি চলমান অভিযান অব্যাহত রাখবেন।
আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আওয়ামী লীগ করলে যা ইচ্ছে তা করা যায় না। আওয়ামী লীগ করতে লাগে নীতি, আদর্শ ও জনগণের জন্য ত্যাগ।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করবেন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বাহাদুর ব্যাপারী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ. আ. ম. স. আরেফিন সিদ্দিক, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক ড. মো. দেলোয়ার হোসেন ও সিলেট মেডিকেল কলেজের উপপরিচালক ফাহিমা আক্তার মনি।