বন্দর নগরীশিক্ষাঙ্গন

প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটিতে বিজয় দিবস উদযাপন

প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির শহিদ মিনারে বীর শহিদদের স্মরণে শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ। ছবি: সংগৃহীত

প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি সংবাদদাতা, চট্টগ্রাম : আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজবিজ্ঞানী ও শিক্ষায় একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেন, শতাব্দীর পর শতাব্দী বাঙালিরা পরাধীন ছিল। ইংরেজরা প্রায় ১৯০ বছর এদেশকে পরাধীন করেছিল, শোষণ করেছিল।

তারা ১৭৫৭ সালে এদেশকে দখল করার পর মাত্র তিন বছরের মধ্যে তৎকালীন ৫০০ কোটি পাউন্ডের সম্পদ এদেশ থেকে পাচার করেছিল ইংল্যান্ডে। ইংরেজদের পরে এদেশকে পরাধীন করে পশ্চিম পাকিস্তান। তারা ২৩ বছর এদেশকে শোষণ করে। এদেশের টাকায় সেখানে নির্মিত হয় তারবেলা বাঁধ; গড়ে উঠে করাচি, রাওয়ালপি-ি ও ইসলামাবাদ। বস্তুত বাঙালির এই পরাধীনতার ইতিহাস বড়ই করুণ।

১৬ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়স্থ প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ইউনিভার্সিটির পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর প্রাক্কালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই এদেশ ও এদেশের মানুষকে এই পরাধীনতা থেকে, এই শোষণ থেকে মুক্তি দেন। ১৯৭১ সালে তাঁর নেতৃত্বে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ, গণযুদ্ধ। তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে এদেশের মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। তারপর দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধের মাধ্যমে তারা অর্জন করে স্বাধীনতা, অর্জন করে বিজয়।

তিনি উল্লেখ করেন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ বাঙালি শহিদ হয়, ২ লক্ষ মা-বোন সম্ভ্রম হারায়। বিশ্বের ইতিহাসে স্বাধীনতার জন্য এত আত্মদানের, এত সম্ভ্রমহানীর নজির আর নেই।

উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করার পরে ইউনিভার্সিটির কর্মকর্তা-কর্মচারী, গণিত বিভাগ, তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগ, ইংরেজি বিভাগ, ব্যবসা-শিক্ষা অনুষদ, আইন অনুষদ, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, স্থাপত্য বিভাগ, অর্থনীতি বিভাগ, সোস্যালজি এন্ড সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ও প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটির পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার প্রফেসর এ কে এম তফজল হক, ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম, প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তৌফিক সাঈদ, ব্যবসা-শিক্ষা অনুষদের সহকারী ডিন মঈনুল হক, প্রক্টর আহমদ রাজীব চৌধুরী, গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইফতেখার মনির, আইন বিভাগের চেয়ারম্যান তানজিনা আলম চৌধুরী, ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান সাদাত জামান খান প্রমুখ। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন চীফ ইঞ্জিনিয়ার ও উপাচার্যের উপদেষ্টা মো. আবু তাহের, রেজিস্ট্রার খুরশিদুর রহমান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শেখ মুহাম্মদ ইব্রাহিম এবং ডেপুটি লাইব্রেরিয়ান কাউসার আলম প্রমুখ।