ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর বাড়ি পাচ্ছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়া

নিজস্ব প্রতিনিধি : কক্সবাজারের উখিয়ার অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়ার কুঁড়েঘর পরিদর্শন করেছেন উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দিন আহমেদ ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) আমিমুল এহসান খাঁন।

শনিবার বিকালে উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের পাতাবাড়ি এলাকায় বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়ার বাড়িটি পরিদর্শনে যান।

এ সময় ইউএনও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান উখিয়ার হলদিয়াপালং এর বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়াকে সরকারী সাহয়তায় “বীর নিবাস” করে দেয়ার কথা জানান।

তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ ও গণমাধ্যমে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়ার টিন ও ত্রিপলের ছাউনির খবর ভাইরাল হওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকের নির্দেশে এই সিদ্ধান্ত নেন এবং বীর মুক্তিযুদ্ধা দুদু মিয়ার বাড়ী পরিদর্শনে যান।

সরেজমিনে জানা গেছে, অনেকদিন ধরে তিনি অসুস্থতায় ভুগছেন। চলতি মাসের বেশ কয়েকদিন আগে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) গভীর রাতে গুরুতর অসুস্থ  হয়ে পড়ে বীর এই মুক্তিযোদ্ধা। অসুস্থতার কারনে নিজের ভাঙ্গা বাড়িতে থাকতে না পেরে আশ্রয় নেয় তার মেয়ের বাড়িতে। মেয়ের বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়া।

এদিকে বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়ার অসুস্থতার খবর পেয়ে গত শুক্রবার দুপুরে তাঁকে দেখতে ছুটে যান উখিয়া উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান মাহামুদুল হক চৌধুরী, জেলা পরিষদের সদস্য আশরাফ জাহান কাজল, তরুন যুবনেতা ইমরুল কায়েস চৌধুরী।

এ সময় ইমরুল কায়েস চৌধুরী তার ফেইজবুকে বীর মুক্তিযোদ্ধার অবস্থা নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। স্ট্যাটাসটি কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কামাল হোসেনের নজরে পড়লে সাথে সাথে তিনি উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়ার বাড়িতে গিয়ে খোজখবর নেয়ার নির্দেশনা দেন।

স্বাধীনতার ৪৯ বৎসর পরে শনিবার (২৮ নভেম্বর) সরেজমিনে গিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দিন আহমেদ এই বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়াকে দ্রুত সরকারের ‘বীর নিবাস’ একতলা একটি বাড়ি নির্মাণ সার্বক্ষনিক চিকিৎসা সহায়তার ঘোষণা দেন।

পরিদর্শনকালে সাথে ছিলেন, ‘উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব’ এর সভাপতি শফিক আজাদ, সাধারণ সম্পাদক পলাশ বড়ুয়া, যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সদস্য রিদুয়ানুল হক সোহাগ৷

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।