বঙ্গবন্ধু হত্যার দিনে জন্মদিন ঘোষণা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ডকে সমর্থন করা

রাইজিং কক্স ডেস্ক ১৫ আগস্ট খালেদা জিয়া জন্মগ্রহণ করেছেন ঘোষণাটি ছিল মিথ্যা বানোয়াট স্বীকার করে বিএনপিকে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত। ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার দিনে জন্মদিন ঘোষণা করা আর এই হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন করা একই কথা। হত্যাকারীদের উৎসাহিত করা। আজ শুক্রবার (১৪ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবে তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড : ষড়যন্ত্র দেশে-বিদেশে’ শীর্ষক সেমিনারে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৫ সালের ১৫ আগস্ট হঠাৎ খালেদা জিয়া জন্মগ্রহণ করলেন। পরবর্তীকালে আমরা পত্রিকার পাতায় জানলাম। উনি এর আগেও অবশ্য ৩-৪ বার জন্মগ্রহণ করেছেন।

তিনি বলেন, একটি কমিশন গঠন করে বেশ কিছুদিন ধরে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচারের দাবি বিভিন্ন মহল থেকে করা হচ্ছে। গতকাল ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন দাবি জানিয়েছে, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে যারা সপরিবারে হত্যা করেছে, তাদের মুখোশ উন্মোচন করার এবং যারা বেঁচে আছে তাদের বিচারের আওতায় আনার। আমি মনে করি, এই যে দাবি কয়েক বছর ধরে করা হচ্ছিল, সেটি নতুন মাত্রা যুক্ত হয়েছে সাংবাদিক সমাজের মাধ্যমে।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল আলোচক ছিলেন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, অবজারভারের সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সস্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, সাংবাদিক নেতা মনজুরুল আহসান বুলবুল, আবদুল জলিল ভূঁইয়া, ওমর ফারুক প্রমুখ। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।