বন্দর নগরীশিক্ষাঙ্গন

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির কল্যাণে ক্রমশ এই বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে : ড. অনুপম সেন

এক শিক্ষার্থীর হাতে ক্রেস্ট তুলে দিচ্ছেন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. অনুপম সেন। ছবি: পিইউ

রাইজিং কক্স ডেস্ক : আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজবিজ্ঞানী ও শিক্ষায় একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেন, আজকের বিশ্ব বিজ্ঞানের বিশ্ব। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির কল্যাণে ক্রমশ এই বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে। একসময় এই পৃথিবীতে বিদ্যুৎ ও কম্পিউটারসহ অনেককিছুই ছিল না। তারপর শুধু বিদ্যুৎ ও কম্পিউটার নয়, একে একে আরো কতোকিছু আবিষ্কৃত ও উৎপাদিত হয়েছে ! সাম্প্রতিক কালে এক বিজ্ঞানী, যাঁর ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং-এ গবেষণা রয়েছে, আফ্রিকার এক অন্ধকার রাস্তায় তাঁর ইলেকট্রিক্যাল গাড়ির সঞ্চিত বিদ্যুৎ শক্তি নিঃশেষ হয়ে গেলে অন্ধকারের মধ্যে থাকা বিভিন্ন রশ্মির মাধ্যমে তিনি তাঁর গাড়ির ব্যাটারিকে পুনর্বিদ্যুতায়িত বা চার্জড করেন। তাঁর এই আবিষ্কার বিজ্ঞান বিশ্বে, বিশেষত সোলার বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে নতুন উদ্দিপনা সৃষ্টি করেছে। ফলে অন্ধকার থেকে আলোর উৎস নিয়ে গবেষণা শুরু হয়েছে। এ থেকে আমাদের ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীবৃন্দকে বুঝতে হবে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে সৃজনশীলতাই মুখ্য। তাঁদেরকেও বিদ্যুৎ বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে নতুন জ্ঞান সৃষ্টিতে ও প্রযুক্তি উদ্ভাবনে এগিয়ে যেতে হবে।

গত ০৯ নভেম্বর (শনিবার) বিকেল ৩ ঘটিকায় নগরীর দামপাড়াস্থ প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি অডিটোরিয়ামে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২৪ ও ২৫ তম ব্যাচের নবীন বরণ এবং ১৬ ও ১৭ তম ব্যাচের বিদায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান টুটন চন্দ্র মল্লিকের সভাপতিত্বে এ-অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. অনুপম সেন বিদায়ী শিক্ষার্থীদের অকুণ্ঠ ভালবাসা ও নবীন শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, এই ইউনিভার্সিটি উচ্চশিক্ষার পাদপীঠ; জ্ঞানচর্চা ও জ্ঞান সৃজনের সুমহান কেন্দ্র। এই ইউনিভার্সিটি থেকে আজকে যাঁরা বিদায় নিয়ে যাচ্ছেন, তাঁদের আহ্বান জানাই, বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মতো তাঁরাও যেন অ্যালামনাই হিসেবে নতুন জ্ঞান সৃষ্টি ও দক্ষ জনগোষ্ঠী তৈরিতে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির সাথে যুক্ত থাকেন ও ভূমিকা রাখেন।

সহকারী অধ্যাপক সাইফুদ্দিন মুন্নার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার প্রফেসর এ.কে.এম. তফজল হক, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা প্রধান কাজী মনিরুল ইসলাম, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তৌফিক সাঈদ।

উপস্থিত ছিলেন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার খুরশিদুর রহমান, আইন অনুষদের অ্যাডজাঙ্কট ডিন প্রফেসর ড. আব্দুল্লাহ আল ফারুক, ব্যবসা-শিক্ষা অনুষদের সহকারী ডিন এম. মইনুল হক, প্রক্টর আহমেদ রাজীব চৌধুরী, সহকারী প্রক্টর মীর তরিকুল আলম, সহকারী প্রক্টর কিংশুক ধর, সহকারী প্রক্টর হিল্লোল সাহা, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফারহানা শিরিন চৌধুরী ও গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তানিয়া নূর।

শেষে সানজিদা আক্তার নুহাশ ও ফারজানা ইতির পরিচালনায় এবং নিরুপমা দাস ও রেজাউর রহমানের উপস্থাপনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন রমেন দাশগুপ্ত ও অয়ন দাস শুভ।