কক্সবাজার

বিভাগীয় জয়িতা হলেন কাউন্সিলর ইয়াসমিন

অতিথির কাছ থেকে সম্মাননা নিচ্ছেন কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার। ছবি: সংগৃহীত

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী : কক্সবাজার পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-২ (সাধারণ ওয়ার্ড ৪, ৫, ৬) এর কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার চট্টগ্রাম বিভাগীয় ‘শ্রেষ্ঠ জয়িতা’ নির্বাচিত হয়েছেন।

‘তোমরাই বাংলাদেশের আলোকবর্তিকা’ শিরোনামে ২০১৮ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তৃণমূলের সফল নারীদের কর্মকান্ডের স্বীকৃতিস্বরূপ কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার সহ প্রথমে চট্টগ্রাম বিভাগের ৫৪ জন সফল নারীকে জয়িতা হিসাবে ক্রেষ্ট ও সনদ প্রদানে করা হয়। পরে জয়িতা হওয়া ৫৪ জন জয়িতা থেকে পারফরম্যান্স যাচাই বাচাই করে কক্সবাজার পৌরসভার কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার সহ ৫ জনকে বিভাগীয় শ্রেষ্ঠ জয়িতার পদক দেওয়া হয়।

বুধবার ১৩ নভেম্বর চট্টগ্রাম এলজিইডি ভবনের সম্মেলন কক্ষে এক বর্নাঢ্য অনুষ্ঠানে নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা এমপি প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে কক্সবাজারের ভূমিকন্যা কাউন্সিল ইয়াসমিন আক্তার সহ নির্বাচিত সকল জয়িতাকে এ বিরল সম্মাননা প্রদান করা হয়।

চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ৫৪ জন জয়িতা সম্মাননা পুরস্কারে ভুষিত হন। ৫৪ জন জয়িতা থেকে শ্রেষ্ঠ ৫ জন জয়িতার তালিকায় স্থান করে নেন কক্সবাজার পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর জনপ্রিয় নেত্রী ইয়াসমিন আক্তার। এখানে নির্বাচিত জয়িতাদের সম্মাননা প্রদান উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিভাগের সফল নারীদের সমাবেশ ছিলো চোখে পড়ার মতো।

চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো.আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বদরুন নেসা।

কক্সবাজার পৌরসভার কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার কক্সবাজার শহরের চৌধুরী পাড়ার ঐতিহ্যবাহী বুনিয়াদি পরিবার মরহুম ডা. খলিলুর রহমান চৌধুরী ও মরহুমা আলহাজ্বা মায়মুনা খাতুনের সন্তান নুরুল হুদা চৌধুরীর সহধর্মিণী। রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আবদুর রহমান ও নুর নাহার বেগমের গর্বিত কন্যা ইয়াসমিন আক্তার ২০১৮ সালে কক্সবাজার পৌরসভার কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার ব্যক্তিগত জীবনে ৩ পুত্র ও ১ কন্যা সন্তানের জননী।

চট্টগ্রাম বিভাগের শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত হওয়ায় কাউন্সিলর ইয়াসমিন আক্তার শোকরিয়া জ্ঞাপন করে বলেন, এ প্রাপ্তি আমার একার নয়, আমাকে যারা নিরন্তর সহযোগিতা করে এ পর্যন্ত নিয়ে এসেছেন তাদের সকলের। একজন সফল নারী হিসেবে তাঁকে জয়িতা সম্মাননা প্রদান করায় তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষককে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি তাঁর এলাকার সাধারণ জনগণের দোয়া ও ভালবাসায় আরো অনেক দূর এগিয়ে যেতে সিবিএন-এর কাছে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম বিভাগের শ্রেষ্ঠ ৫ জন জয়িতা মধ্যে তিনি অর্থনৈতিক ক্যাটাগরীতে একজন হতে পেরে তিনি বেশ আনন্দিত। তিনি এরপরেও যাতে সফলভাবে জীবন পরিচালনার মাধ্যমে দেশের শ্রেষ্ঠ জয়িতা হতে পারেন, তাঁর জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। তিনি অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রতিমন্ত্রীকে বিশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এই সম্মাননা তিনি কক্সবাজার পৌরসভার তাঁর ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সর্বস্থরের জনগণের জন্য উৎসর্গ করেন। তিনি বলেন, এই অর্জনের মুহুর্তে আমার এলাকার জনসাধারণ ও তাঁর পিতা সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আবদুর রহমান এর কথা বেশী মনে পড়ছে বলে জানান।