টেকনাফসীমান্ত

মিয়ানমার সীমান্তরক্ষীর গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

নাফ নদী। ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক : কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদীতে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি’র) গুলিতে বাংলাদেশি এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে বিজিবির পক্ষ থেকে একটি প্রতিবাদ লিপি পাঠানো হচ্ছে।

রোববার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফস্থ বিজিবির ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান।

তিনি বলেন, “প্রাথমিকভাবে স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পারি, শনিবার রাতে নাফ নদীতে মাছ শিকারে গিয়ে মোহাম্মদ ইসলাম নামে এক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছে। কিন্তু নাফ নদীতে মাছ ধরা নিষেধ। তার উপর সে মিয়ানমারের সীমান্তে চলে যায়। সেহেতু মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী গুলি করেছে সন্ত্রাসী মনে করে কিংবা যেকোন কারণেই।”

লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান বলেন, “কি কারণে ওই ব্যক্তি নাফ নদীতে গিয়েছে এটা অজানা। কিন্তু নাফ নদীতে গিয়ে বাংলাদেশি মারা গিয়েছে; মিয়ানমারের ওরা গুলি করেছে। তাই এটা জন্য বিজিবির পক্ষ থেকে একটি প্রতিবাদ লিপি পাঠানো হচ্ছে। ভবিষ্যতে যাতে এরকম গুলিতে বাংলাদেশি নাগরিক মারা না এটা প্রতিকার চেয়ে চিঠি দিচ্ছি।

টেকনাফ উপজেলা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্স জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, শনিবার রাতে স্থানীয় লোকজন গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে নিয়ে আসেন। তার পেটের ডান পাশে গুলির আঘাত রয়েছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আরএমও (প্রশাসন) ডা. নওশাদ রিয়াদ জানান, টেকনাফ থেকে আনা গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল আলিম বলেন, গুলিবিদ্ধ হয়ে এক ব্যক্তি আহত হওয়ার খবর শুনেছি। তিনি মারা গেছে এমন খবর শুনেনি। বিষয়টির খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।
টেকনাফ পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহ আলম জানান, নাফনদীতে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়া মোহাম্মদ ইসলামের জানাজা রোববার এশার নামাযের আগে অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। সূত্র : দৈনিক সাগরদেশ অনলাইন