রামু

রামুর মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক আজিজ মিঞা’র ৪৫তম মৃত্যু বার্ষিকী আজ

আজিজ মিঞা

খালেদ শহীদ, রামু : মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক রামু থানা আওয়ামীলীগের প্রথম সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলামের ৪৫তম মৃত্যু বার্ষিকী আজ। ১৯৭৫ সালের ১ আগষ্টের পূর্ব রাতে রামুর খুনিয়াপালং ইউনিয়নের দারিয়ার দিঘী এলাকার খামার বাড়িতে দুষ্কৃতকারীর হাতে নৃশংসভাবে নিহত হন তিনি।
আজিজুল ইসলাম আপন-পর নির্বিচারে ন্যায় বিচারের জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। অত্যন্ত তেজস্বী পুরুষ এই রাজনীতিক আজিজ মিঞা নামেই অধিক পরিচিত ছিলেন।

১৯৬৯ সালের গণ আন্দোলনে ও ১৯৭০ সালের আওয়ামীলীগ পুণঃগঠন এবং সাধারণ নির্বাচনের আওয়ামীলীগের বিজয় অর্জনে বিরল ভূমিকা রাখেন তেজস্বী পুরুষ আজিজ মিঞা।
মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আজিজ মিঞা বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জনের পর তৎকালীন রামু থানায় শান্তি শৃঙ্খলা ও শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় স্মরণীয় অবদান রাখেন।

রামুর কিংবদন্তী ন্যায় বিচারক আজিজ মিঞা তৎকালীন কক্সবাজার মহকুমার প্রথম বিএ গ্র্যাজুয়েট ও প্রথম আইনজীবী উকিল মেহের আলী বি এল এর দ্বিতীয় ছেলে। রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল মনসুরের মেজ ভাই, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম শাহ আলম বাদলের মেজ আব্বা।

ন্যায় বিচারক, রাজনীতিক আজিজ মিঞা ১৯৩৪ সালের ১২ জানুয়ারী রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের অফিসের চরস্থ সিকদার পাড়ায় জন্ম গ্রহন করেন।

তাঁর চাচাতো ভাই আলহাজ্ব ডাক্তার নুরুল হক কক্সবাজার জেলার প্রথম এমবিবিএস চিকিৎসক ও মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক মোহাম্মদ ওবাইদুল হক স্বাধীন বাংলাদেশে তৎকালীন রামু থানার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদের প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যন।

রামুর প্রয়াত রাজনৈতিক আজিজুল ইসলাম (আজিজ মিঞা) কক্সবাজারের রামু-উখিয়ার প্রাচীন জনগোষ্ঠী’র সংগঠন ‘আবদুল আলী সিকদার বংশ সংহতি সংঘ’র দ্বাদশ প্রজন্ম পুরুষ।

Comment here