রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে যুবক নিহত

তানজিমারখোলা ১৩ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প। ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে মোহাম্মদ জাবেদ (২০) নামে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে।

নিহত রোহিঙ্গা পালংখালীস্থ তানজিমারখোলা ১৩ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ডি/৪ ব্লকের মোহাম্মদ ইসলাম’এর ছেলে।

সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের তানজিমারখোলা ডি/৮ ব্লকে এ ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজার ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম তারিক গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও এপিবিএন সূত্র জানায়, গতকাল রাতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মোজাম্মেল ওরফে শেখ ও মৌলভি ইউনুসের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জন অস্ত্রধারী ডি/৮ ব্লকের রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল। ঘোনারপাড়ার ক্যাম্পের নুরুল হাকিম ওরফে মনুইয়ার নেতৃত্বে সাত থেকে আটজন এ সময় তাদের পথরোধ করে। রাতের বেলায় শেখের পক্ষের লোকজনকে ঘোরাঘুরি করতে নিষেধ করেন।

এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে। ওই সময় উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে ডি/৪ ব্লকের বাসিন্দা মোহাম্মদ জাবেদ গুলিবিদ্ধ হন।

তাকে উদ্ধার করে রোহিঙ্গা স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রোহিঙ্গা নাগরিকের লাশটি উদ্ধার করে শিবিরের ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে রাখা হয়েছে।

লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানোর কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন অধিনায়ক তারিকুল ইসলাম তারিক।

রোহিঙ্গা নেতা মোঃ আলী বলেন, এই ঘটনার পর থেকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসী দু’গ্রুপের গোলাগুলিতে নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক : উখিয়ায় দুই সন্ত্রাসী গ্রুপের গোলাগুলিতে মোহাম্মদ জাবেদ (২০) নামের একজন রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। তিনি উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের তানজিমারখোলা রোহিঙ্গা শিবিরের ডি/৪ ব্লকের বাসিন্দা। সে ওই ব্লকের মোহাম্মদ ইসলাম’এর ছেলে।

সোমবার দিবাগত রাত একটার দিকে উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের তানজিমারখোলা রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবিরে ডি/৮ ব্লকে এই ঘটনা ঘটেছে।

কক্সবাজার ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম তারিক গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও এপিবিএন সূত্র জানায়, গতকাল রাতে রোহিঙ্গা শিবিরের মোজাম্মেল ওরফে শেখ ও মৌলভি ইউনুসের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জন অস্ত্রধারী ডি/৮ ব্লকের রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। স্থানীয় পালংখালীর ঘোনারপাড়ার নুরুল হাকিম ওরফে মনুইয়ার নেতৃত্বে সাত থেকে আটজন এ সময় তাদের পথরোধ করেন। তাঁরা রাতের বেলায় শেখের পক্ষের লোকজনকে ঘোরাঘুরি করতে নিষেধ করেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। তিন থেকে চারটি গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে। ওই সময় উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে রোহিঙ্গা শিবিরের ডি/৪ ব্লকের বাসিন্দা মোহাম্মদ জাবেদ গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাঁকে উদ্ধার করে রোহিঙ্গা শিবিরের স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রোহিঙ্গা নাগরিকের লাশটি উদ্ধার করে শিবিরের ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে রাখা হয়েছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানোর কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন অধিনায়ক তারিকুল ইসলাম তারিক।

রোহিঙ্গা নেতা মোঃ আলী বলেন, এই ঘটনার পর থেকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।