শীতার্ত পথ

মূল : আলেক্সান্দার পুশকিন

অনুবাদ : রওনক জাহান

ঢেউ খেলে যায় ঘনঘোর কুয়াশায়,
তাহার রন্ধ্রে উঁকি দেয় ভীরু চাঁদ
মনমরা মাঠে, বনের যত ফাঁকায়
ছন্নছড়া সে জোৎস্নার পাতে ফাঁদ।
শীতের রাস্তা একঘেয়ে, দুর্মর
ত্রইকা ছুটছে শিকারি কুকুর হেন
ঝুনঝুন বাজে ঘুণ্টি ক্লান্তিকর,
ঝুনঝুন স্বর, শেষ নেই আর যেন।
গাড়োয়ান গান গেয়ে চলে একটানা
কী যেন আছে সে গানে অন্তরছোঁয়া,
কখনও গোপন ব্যথায় সে আনমনা
কভু উদ্দাম স্ফুর্তিতে বেপরোয়া…
আলো নেই কোনো, মিথ্যে কুটির খোঁজা
ধু-ধু করে শুধু তুষার শুভ্রপ্রেত…
ডোরাকটা যত মাইলপোস্টরা সোজা
ছুটে এসে পিছে পড়ে থাকে অনিকেত।
একঘেয়ে ঠেকে, তবু কাল আগামীতে
নিন প্রিয়তমা-তার কাছে পৌঁছব,
তাকে দেখে আশ মিটবে না, কাছটিতে
চুল্লির ধারে বসে তন্ময় হব।
সশব্দে হেঁটে যাবে ঘড়িটার কাঁটা
তালে তালে মেপে সময়বৃত্ত চেনা
মাঝরাতে তবু ঝমঝম ওর হাঁটা
মোদের দুজনে বিচ্ছেদ ঘটাবে না।
বিষণ্ন লাগে, ক্লান্তিকর এ পথ
গাড়োয়ান চুপ -ঢোলে তন্দ্রার সুখে
বাজে একটানা ঘুণ্টির নহবত
কুয়াশা ক্রমশ নামল চাঁদের মুখে।

 

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।