সেন্টমার্টিনের অদূরে বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি, ৪ মরদেহ উদ্ধার

ফাইল ছবি

আমান উল্লাহ কবির, টেকনাফ : বঙ্গোপসাগরে এফভি যানজাবিল নামে মাছ ধরার একটি বড় ট্রলার ডুবে গেছে। এ ঘটনায় ৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পাশাপাশি ১৩জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ কোস্টগার্ড।

আজ শনিবার (২৩ জানুয়ারি) ভোরে সেন্ট মার্টিনের ৬৫ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে বঙ্গোপসাগরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জাহাজডুবির ঘটনায় বেলা দুইটা পর্যন্ত চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে ডুবে যাওয়া জাহাজের মালিক মোহাম্মদ আলী বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে দাবি করেছেন।

ট্রলারটির মালিক মোহাম্মদ আলী চট্টগ্রাম জেলার কর্ণফুলী উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ।

তিনি বলেন, আজ শনিবার সকালে হঠাৎ ঘন কুয়াশায় দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার সৃষ্টি হলে ট্রলারটি ডুবে যায় বলে তিনি খবর পান। জাহাজটি চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থেকে এক সপ্তাহ আগে সাগরে গিয়েছিল। মাছ ধরার ওই জাহাজে ২৫ জন ছিলেন।

জাহাজের মালিকপক্ষ জানিয়েছে, আজ ভোররাত সাড়ে চারটার দিকে এফভি যানজাবিল নামের মাছ ধরার ট্রলারটি ডুবে যায়। ওই সময় আশপাশের অন্য মাছ ধরার ট্রলার কয়েকজনকে উদ্ধার করে।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, “আমাকে কোস্টগার্ড সেন্টমার্টিন স্টেশনের কমান্ডার জানিয়েছেন একটি মাছ ধরার ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

কোষ্টগার্ড মিডিয়া কর্মকর্তা লে. আমিরুল হক জানান, চট্টগ্রাম থেকে ২৫ জন জেলেসহ এফভি যানযাবিল নামে একটি মাছ ধরার ট্রলার সেন্টমার্টিনের ৩৫ মাইল দূরে গভীর বঙ্গোপসাগরে ডুবে যায়। এসময় ট্রলারটি ডুবে ৪জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ১৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও বাকীরা এখনো নিঁখোজ রয়েছে।

তিনি জানান, মাছ ধরার ট্রলার ডুবে যাওয়ার খবর পেয়ে উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছেন। এসময় অন্যান্য জেলেদের সহায়তায় নৌবাহিনী ও কোষ্টগার্ড যৌথভাবে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছে। ডুবে যাওয়া ট্রেলারের এখনও সন্ধান পাওয়া যায়নি।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।