হলদিয়া-পাতাবাড়ীতে ফার্নিচার ব্যবসায় নতুন সম্ভাবনা

সোহেল মাহমুদ : উখিয়া উপজেলার হলদিয়া পাতাবাড়ীতে ফার্নিচার ব্যবসায় নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। দুই বছর আগেও যেখানে হাতে গোনা কয়েকটি ফার্নিচার দোকান ছিল সেখানে এখন প্রায় ৩০টির অধিক ফার্নিচারের শোরুম ও কারখানা গড়ে উঠেছে। যা এলাকার অর্থনীতির চিত্র পাল্টে দিচ্ছে। নতুন করে ভাবতে শুরু করেছেন এই ব্যবসার সাথে জড়িতরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হলদিয়া পাতাবাড়ীতে তৈরিকৃত ফার্নিচার স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে জেলার বিভিন্ন জায়গায় সরবরাহ করা হচ্ছে।ফার্নিচার ব্যবসার ব্যাপক প্রসারের কারনে কমপক্ষে ৩০০ জন শ্রমিক ও ব্যবসায়ীর আয়ের পথ সৃষ্টি হয়েছে।যা অত্র এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান ও বেকারত্ব দূরীকরনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে।

কয়েকজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী জানান, প্রয়োজনীয় কাঠের সহজলভ্যতার কারনে এখানে ফার্নিচার তৈরির একটা সুবিধাজনক অবস্থান সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া কাঠের গুনগত মান ও বিশ্বাসযোগ্যতার কারনে ক্রেতারা এই এলাকার ফার্নিচারের প্রতি আকৃষ্ট হয়েছেন।

প্রায় বিশ বছর ধরে ফার্নিচার ব্যবসায় জড়িত নুরুল আলম বলেন,আমাদের কাঠের মান ভালো তাই আমাদের প্রতি ক্রেতাদের একটা আস্থা তৈরি হয়েছে।

আলম ফার্নিচার মার্টের স্বত্বাধিকারী মোঃ আলম বলেন, কাঠের গুনগত মান ভালো হওয়ায় এই এলাকার ফার্নিচারের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।তিনি বছরে ৪০ লক্ষ টাকার ব্যবসা করেন বলে জানান।
বর্তমানে বছরে প্রায় ৩ কোটি টাকার ব্যবসা হচ্ছে বলে জানা গেছে। ভালো পরিবেশ ও সুযোগসুবিধা পেলে হলদিয়া পাতাবাড়ীর ফার্নিচার কক্সবাজার জেলায় একটা সুনাম অর্জন করতে পারবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।