টেকনাফ

হোয়াইক্যং সীমান্তে বন্দুকযুদ্ধে নারী মাদক কারবারী নিহত

ছবি: রাইজিং কক্স

সাদ্দাম হোসাইন : টেকনাফের হোয়াইক্যং খারাংখালী সীমান্ত সংলগ্ন লবণ মাঠে বন্দুকযুদ্ধে মহিলা মাদক কারবারী নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থলে ৪জন পুলিশ সদস্য আহত হলেও ঘটনাস্থল হতে ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

৫ জানুয়ারী (রবিবার) রাতের প্রথম প্রহরে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের একটি দল কতিপয় মহিলা মাদক পাচারকারী মাদক বহনের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার হোয়াইক্যং খারাংখালী সংলগ্ন লবণ মাঠে অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর বেড়িবাঁধ এলাকা হতে একদল নারী-পুরুষ আসলে পুলিশী টহল দল তাদের গতিরোধ করার চেষ্টা করলে মাদক বহনকারী চক্রের সহযোগীরা পুলিশ লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করলে থানা পুলিশের এএসআই আরিফুর রহমান (২৭), কনস্টেবল রুবেল, রাসেল ও হাবিব আহত হলে পুলিশও আতœরক্ষার্থে বেশ কয়েক রাউন্ড পাল্টাগুলিবর্ষণ করেন। কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ১০হাজার ইয়াবার একটি মাদকের পুটলাসহ একজন গুলিবিদ্ধ নারীকে উদ্ধার করে।

পরে আহত পুলিশ সদস্য এবং গুলিবিদ্ধ নারীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য গুলিবিদ্ধ মহিলা মাদক কারবারীকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। নিহত মহিলা হোয়াইক্যং পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়ার মৃত নুর সালামের স্ত্রী ছমুদা বেগম (৪০) বলে সনাক্ত করা হয়। সে সক্রিয় মাদক কারবারী এবং একাধিক মামলার আসামী ছিল। এই ব্যাপারে তদন্ত স্বাপেক্ষে পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন