আন্তর্জাতিকখেলাধুলা

১ আগস্ট শুরু হচ্ছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ: জেনে নিন খুটিনাটি

ক্রীড়া ডেস্ক, রাইজিং কক্স : অভিজাত ফরম্যাট টেস্ট ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা ফিরিয়ে আনতে অভিনব উদ্যোগ গ্রহণ করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। পিঙ্ক বল টেস্ট, ডে-নাইট টেস্ট, টেস্ট জার্সিতে নম্বর এরকম অনেক অভিনব উদ্যোগের সঙ্গে যোগ হচ্ছে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ।

একদিনের বিশ্বকাপ প্রথম বার জিতেছে ইংল্যান্ড। সেই ইংল্যান্ডেই আগামী ১ অগস্ট থেকে শুরু হতে চলেছে টেস্ট বিশ্বকাপ। তার আগেই জেনে নিন এই বিশ্বকাপ সম্পর্কে খুটিনাটি।

এক সময় শুধুই ছিল টেস্ট ক্রিকেট। কিন্তু সময়কে মাথায় রেখে ক্রিকেট ছোট হয়েছে। একদিনের ক্রিকেট ৬০ ওভার থেকে কমে ৫০ হয়েছে। এসেছে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট। কমেছে টেস্ট ক্রিকেটের আকর্ষণ। সেই টেস্ট ক্রিকেটে আবার মানুষকে আকৃষ্ট করতে আইসিসির নতুন উদ্যোগ।

২০০৯ সালে প্রথমবারের জন্য আইসিসির মাথায় আসে টেস্ট বিশ্বকাপের ভাবনা। সমস্ত টেস্ট খেলিয়ে দেশকে নিয়ে এক অভিনব বিশ্বকাপের পরিকল্পনা পেশ করে তারা। নাম ঠিক করা হয় ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। যা লোক মুখে হয়ে যায় টেস্ট বিশ্বকাপ।

২০১০ সালে সেই পরিকল্পনা পাশ হয় আইসিসিতে। তারা ঠিক করে, ২০১৩ সালে হবে এই বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পরিবর্তে। কিন্তু আর্থিক কারণে পিছিয়ে আসে আইসিসি। তারা ইংল্যান্ডে হতে চলা এই টেস্ট বিশ্বকাপের পরিবর্তে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজনের সুযোগ দেয় ইংল্যান্ডকে। যা নিয়ে অসন্তোষ দেখা দেয় ক্রিকেটাঙ্গনে। ২০১৩ সাল থেকে পিছিয়ে ঠিক হয় টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ হবে ২০১৭ সালে। কিন্তু সেবারেও তা সম্ভব হয়নি। বার বার পরিবর্তিত হতে থাকে এই চ্যাম্পিয়নশিপের নিয়ম।

অবশেষে চলতি বছর শুরু হতে চলেছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। শুরু হচ্ছে সেই ইংল্যান্ডেই। অ্যাসেজ টেস্ট সিরিজ দিয়ে শুরু হবে এই বিশ্বকাপ। দ্বিপাক্ষিক সিরিজকে আরও বেশি আকর্ষণীয় ও প্রতিদ্বন্দ্বিতামুলক করে তোলবার জন্য এই টেস্ট বিশ্বকাপে আকর্ষণীয় কিছু নিয়ম রয়েছে। ২০১৯ সালের ১ আগস্ট থেকে ২০২১ সালের ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সমস্ত দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হয়ে উঠবে এই বিশ্বকাপের অঙ্গ। টেস্ট ক্রিকেটে রাঙ্কিংয়ের প্রথম ৯টি দেশকে নিয়ে চলবে এই বিশ্বকাপ।

২১ মাসের এই দীর্ঘ বিশ্বকাপে প্রতিটা দেশ খেলবে ৬টি করে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ। এক একটি সিরিজের পয়েন্ট হবে ১২০। প্রতিটা দেশের মোট পয়েন্ট হবে ৭২০। তাই কোনো দেশের বেশি বা কম ম্যাচ খেলা দিয়ে পয়েন্টের হিসাব বিচার করা হবে না।  তাহলে কীভাবে নির্ধারিত হবে এই বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন? ২০২১ সালের ৩০ এপ্রিলের পর পয়েন্টের হিসেবে প্রথম দুই দলের মধ্যে জুন মাসে হবে ফাইনাল। সেই ফাইনাল খেলা হবে ইংল্যান্ডে। তার মাধ্যমেই প্রথম টেস্ট বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাবে ক্রিকেট বিশ্ব।