আন্তর্জাতিক

৪০ বছর পর প্রধানমন্ত্রী পেল কিউবা

ম্যারেরো ক্রুজ। ছবি: সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ১৯৭৬ সালে কিউবায় প্রধানমন্ত্রী পদ বাতিল করেছিলেন বিপ্লবী নেতা ফিদেল ক্যাস্ত্রো। তারপর এতদিন এ পদে আর কাউকে নিয়োগ দেয়া হয় নি। তবে সেই ধারা ভেঙেছে কিউবা।

৪০ বছরেরও বেশি সময় পরে প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি হলেন বর্তমান পর্যটন বিষয়ক মন্ত্রী ম্যানুয়েল ম্যারেরো ক্রুজ। কমিউনিস্ট শাসিত এ দেশটিতে এ বছরের শুরুতে নতুন একটি সংবিধান প্রণীত হয়। তার অধীনে প্রধানমন্ত্রী পদ পুনর্বহাল করা হয়। বর্তমানে প্রেসিডেন্টের হাতে যেসব দায়দায়িত্ব রয়েছে, ক্ষমতা রয়েছে তার কিছুটা ভাগ পাবেন ৫৬ বছর বয়সী নতুন প্রধানমন্ত্রী।

রাষ্ট্রীয় অনলাইন সংবাদ মাধ্যম কিউবা ডিবেট’কে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। সমালোচকরা বলছেন, এই পরিবর্তন হলো উপরে প্রলেপ দেয়া। কারণ, কিউবান কমিউনিস্ট পার্টি এবং সেনাবাহিনী সেখানে এখনও বাস্তবে সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী প্রধান প্রতিষ্ঠান।

শনিবার জাতীয় পার্লামেন্টের ডেপুটিরা সর্বসম্মত ভোটে প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করেন ম্যারেরোকে। রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র গ্রানমা এই নেতাকে বর্ণনা করেছে এমন একজন রাজনীতিক হিসেবে, যার উত্থান ঘটেছে দেশটির পর্যটন শিল্প থেকে। এটি হলো কিউবায় বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের প্রধান উৎস। ২০০০ সালে তাকে সেনাবাহিনী পরিচালিত গাভিওটা পর্যটন গ্রুপের প্রেসিডেন্ট বানানো হয়। এই গ্রুপটির হোটেলগুলো যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের অধীনে রয়েছে অবরোধের মুখে। ২০০৪ সালে ম্যারেরোকে পর্যটন মন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা দেন প্রয়াত নেতা ফিদেল ক্যাস্ত্রো। তার পর থেকে এই দ্বীপরাষ্ট্রটিতে পর্যটন খাতে বিপুল সমৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। তবে ম্যারেরো এখনও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকবেন কিনা তা পরিষ্কারভাবে জানা যায় নি।