চকরিয়ায় আগ্নোয়াস্ত্রসহ বিডিআর বিদ্রোহে সাজাপাপ্ত আসামীসহ ২ সন্ত্রাসী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে এক রাউন্ড গুলিসহ একটি ওয়ানশুটার গানসহ বিডিআর বিদ্রোহে সাজাপ্রাপ্ত সাবেক বিডিআর সদস্যসহ ২ অস্ত্রধারা সন্ত্রাসীকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটলিয়ন(র‌্যাব)-৭। বুধবার সন্ধ্যায় র‌্যাব-৭ এর সদস্যরা চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়ন সংলগ্ন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব আগ্নোয়াস্ত্রসহ তাদের আটক করে। ধৃতরা হচ্ছেন ইমরুল হাসান হাফিজ বিএমচর এলাকার মৃত আলী আহমদ এবং ঢেমুশিয়া এলাকার বিডিআর বিদ্রোহে সাজাপ্রাপ্ত সাবেক বিডিআর সদস্য শেখ সালাহ উদ্দিন মৃত মোহাম্মদ ইসহাকের ছেলে বলে বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামস্থ র‌্যাব- ৭ এর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল আবছার স্বাক্ষরিত সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

চট্টগ্রামস্থ র‌্যাব- ১৫ এর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল আবছার জানিয়েছেন, বুধবার সন্ধ্যায় কতিপয় মাদক কারবারী কোনাখালী ইউনিয়ন সংলগ্ন এলাকা মাদক বিক্রির উদ্দেশ্যে অবস্থান করছেন এমন খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় চকরিয়া উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বেতুয়া এলাকার মৃত আলী আহমদের ছেলে ইমরুল হাসান হাফিজ এবং কোনাখালী ইউনিয়নের পশ্চিম কোনাখালী এলাকার মৃত মোহাম্মদ ইসহাকের ছেলে বিডিআর বিদ্রোহে সাজাপ্রাপ্ত সাবেক বিডিআর সদস্য শেখ সালাহ উদ্দি কে আটক করা হয়। পরে স্বীকারোক্তিতে তার দেহ তল্লাশি করে প্যান্টে গোছানো একটি ওয়ানশুটার গান এবং এক রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে ধৃত শেখ সালাহ উদ্দিন ২০০৯ সালে সংঘটিত বিডিআর বিদ্রোহে একাত্মতা প্রকাশ করায় আড়াই বছর সাজা ভোগ করেন এবং তার বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা রয়েছে এবং ধৃতরা দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা করে আসছে বলে স্বীকার করেছেন বলে যোগ করেন র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক মো. নুরুল আবছার।
ধৃতের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চকরিয়া থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান জানিয়েছেন র‌্যাব- ১৫ এর কর্মকর্তা।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।