রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনা শনাক্ত, আলাদা করা হচ্ছে দুই হাজার রোহিঙ্গা

ফাইল ছবি

নিউজ ডেস্ক : কক্সবাজারের উখিয়ায় কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দু’জন শরণার্থীকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। ফলে প্রায় দশ লাখ রোহিঙ্গার আবাসস্থল শরণার্থী শিবিরগুলোতে এই প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেলো।

রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়ের স্বাস্থ্য সমন্বয়ক ডা. তোয়াহা ভুঁইয়া জানিয়েছেন, উখিয়া টেকনাফের ৩৪ টি মেগা ক্যাম্প থেকে ৩৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ওই পরীক্ষায় দু’জন করোনাভাইরাস পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। তারা দুইজনই উখিয়া ক্যাম্পের বাসিন্দা। তার মধ্যে একজন ক্যাম্প-১, ই-ব্লকের এবং অপরজন হচ্ছে এমএসএফ ওসিআই রয়েছে। দুইজন রোহিঙ্গাকেই আইসোলেশনে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া এই দুই রোহিঙ্গা ঘর ও আশপাশের এলাকা লকডাউন করা হয়েছে।ক্রান্ত দু’জনের সংস্পর্শে এসেছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে, এমন প্রায় এক হাজার ৯০০ জনকে এখন আলাদা করার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে আক্রান্ত দু’জনের একজনকে আন্তর্জাতিক সংস্থা মেডিসিন উইদাউট বর্ডারস এবং অন্যকে আন্তর্জাতিক শরণার্থী সংস্থার তত্ত্বাবধানে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরুতেই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরগুলো নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছিলেন।

ক্যাম্পে অনেক ছোট জায়গায় প্রায় দশ লাখ রোহিঙ্গার বসবাসের কারণেই এ উদ্বেগ তৈরি হয়েছিলো।
এ উদ্বেগ থেকেই গত ৪ঠা মার্চ ক্যাম্প আংশিক ও ১৪ই মার্চ থেকে পুরোপুরি লকডাউন করে দেয়া হয় বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

সুত্র : বিবিসি বাংলা

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।