বিদায়ী টেস্টে বড় জয় উপহার পেলেন মাহমুদউল্লাহ

হারারে টেস্ট জয়ের পর বাংলাদেশ দলের উল্লাস।

ক্রীড়া ডেস্ক : অনেকটা হুট করেই সিদ্ধান্তটা নিয়েছেন মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ। হারারে টেস্টে ক্যারিয়ারসেরা ১৫০ রানের ইনিংস খেলার পরই ড্রেসিংরুমে মাহমুদ উল্লাহ জানিয়ে দেন, এটাই তার ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট।

টেস্টে নিজেকে নিয়ে ‘অবহেলা’র জবাব হিসেবে তিনি অবসর নিয়েছেন বলে ধারণা ক্রিকেটবোদ্ধাদের। ৫০তম টেস্টে সাদা পোশাকের ক্রিকেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়া মাহমুদ উল্লাহকে বড় জয় উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ে সফরের একমাত্র টেস্টে স্বাগতিকদের ২২০ রানে হারিয়েছে মুমিনুল হকের দল। বাংলাদেশের দেয়া ৪৭৭ রানের লক্ষ্য টপকাতে গিয়ে ২৫৬ রানে থামে জিম্বাবুয়ে।

বাংলাদেশ জয়ের পথ পরিস্কার করে রাখে চতুর্থ দিনেই। শেষ দিনে দ্রুতই জয় তুলে নিতে মরিয়া হয়ে ওঠে বাংলাদেশ। আগের দিনের ৩ উইকেটে ১৪০ রান নিয়ে রোববার পঞ্চম দিনের ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়ে প্রথম সেশনে হারায় আরও ৪ উইকেট।

বাংলাদেশের জয় দীর্ঘায়িত করেছেন ডোনাল্ড টিরিপিানো ও ব্লেসিং মুজারাবানি। বোলার হলেও ব্যাট হাতে আলো ছড়িয়েছেন দু’জন। ৫২ রান করেন টিরিপানো। ক্যারিয়ার সেরা ৩০ রানে অপরাজিত থাকেন মুজারাবানি।

প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেটের দেখা পাওয়া মেহেদি হাসান মিরাজ দারুণ বোলিং করছেন দ্বিতীয় ইনিংসেও। ৬৬ রানে মিরাজের শিকার ৪ উইকেট। ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেছেন তাসকিন আহমেদ। ৮২ রানে ৪ উইকেট শিকার তাসকিনের। আগের সেরা ছিল ১২৭ রানে ৪ উইকেট।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের করা ৪৬৮ রানের জবাবে ২৭৬ রানে অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে। ১ উইকেটে ২৮৪ রান তুলে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস : ৪৬৮/১০ (মাহমুদউল্লাহ ১৫০*, লিটন দাস ৯৫, তাসকিন আহমেদ ৭৫, মুমিনুল হক ৭০, সাদমান ইসলাম ২৩; ব্লেসিং মুজারবানি ৪/৯৪)

জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংস : ২৭৬/১০ (তাকুজওয়ানাশে কাইতানো ৮৭, ব্রেন্ডন টেলর ৮১, রেগিস চাকাভা ৩১*; মেহেদি মিরাজ ৫/৮২, সাকিব আল হাসান ৪/৮২)

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস : ২৮৪/১ ডিক্লে. (সাদমান ইসলাম ১১৫*, নাজমুল হোসেন শান্ত ১১৭*, সাইফ হাসান ৪৩)

জিম্বাবুয়ে দ্বিতীয় ইনিংস : ২৫৬/১০ (ব্রেন্ডন টেলর ৯২, ডোনাল্ড তিরিপানো ৫২; মেহেদি মিরাজ ৪/৬৬, তাসকিন আহমেদ ৪/৮২)

ফল : বাংলাদেশ ২২০ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।