রোহিঙ্গার ঘরের মেঝে খুঁড়ে মিলল ২ লাখ ৬৮ হাজার ইয়াবা

নিজস্ব সংবাদদাতা : কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ২ লাখ ৬৮ হাজার ইয়াবাসহ দুই রোহিঙ্গা মাদক কারবারীকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১৫), কক্সবাজার।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) রাত ১১ টা ৪০ মিনিটের দিকে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

সূত্র জানায়, র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক কারবারী কক্সবাজার জেলার উখিয়ার পালংখালী ইউপিস্থ থাইংখালী ১৯ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডি-৩ ব্লকে কলিম উল্লাহ এর বসতঘরে দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট মজুদ রেখে ক্রয়-বিক্রয় করে আসছে।

অভিযানকালে র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় ক্যাম্প-১৯, ব্লক ডি৩, প্রধান মাঝি-এনামুল্লাহ, সহ-মাঝি-আবুল কালাম এর মৃত জাহিদ হোসাইন ও ফাতেমা খাতুনের ছেলে কলিম উল্লাহ (৩৯) এবং কলিম উল্লাহ ও আরেফা বেগমের ছেলে কেফায়েত উল্লাহ (১৯) কে আটক করা হয়। এ সময় তাদের সহযোগী  ২-৩ জন পালিয়ে যায়।

আটককৃতদের দেওয়া তথ্য মতে তাদের বসতঘরের মেঝের মাটি খুড়ে প্লাষ্টিকের বস্তার ভিতর হতে সর্বমোট ২,৬৮,০০০ (দুই লাখ আটষট্টি হাজার) পিস ইয়াবাসহ নগদ ২৮,০৫০ কিয়াট মায়ানমার মুদ্রা উদ্ধার করা হয়।

আটকৃতরা আরো জানায়, অজ্ঞাতনামা পলাতক আসামীদের সহযোগীতায় তারা দীর্ঘদিন ধরে টেকনাফের সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্রয় করে আসছে।

র‌্যাব-১৫, কক্সবাজারের সিনিঃ সহকারী পরিচালক (মিডিয়া এন্ড অপারেশনস্) আবদুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী জানান, আটককৃত আসামীদের পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উখিয়া থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। পলাতক আসামীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।