কক্সবাজার প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের ইন্তেকাল

নুরুল ইসলাম

রাইজিং কক্স ডেস্ক  : কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা, কক্সবাজার মহকুমা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, কক্সবাজার প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং দৈনিক কক্সবাজার সম্পাদক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম ইন্তেকাল করেছেন।

(ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাহি রাজিউন) মঙ্গলবার রাত ৮ টা ৪০ মিনিটের দিকে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। দীর্ঘদিন যাবৎ বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগে ৯১ বছর বয়সে মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে স্ত্রী, তিন পুত্র, দুই কন্যা সহ অসংখ্যা গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। রাত সাড়ে ১১ টায় চট্টগ্রাম কাতালগঞ্জ জামে মসজিদে মাঠ প্রাঙ্গনে প্রথম নামাজে জানাযা ও বুধবার সকাল ১১ টায় কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর কক্সবাজার শহরের বইল্ল্যাপাড়া কবরস্থানে তার পিতার কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়েছে।

ত্রিশ দশকে জন্ম নেয়া নুরুল ইসলাম চট্টগ্রাম সিটি কলেজ থেকে স্নাতক পাস করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে ১৯৬৪ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। তিনি কক্সবাজার মহকুমা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক। ১৯৬৬ সালে ৬ দফা আন্দোলন ও ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। মুক্তিযুদ্ধে সময় কক্সবাজার মহকুমা সংগ্রাম পরিষদের প্রতিনিধি হিসেবে চকরিয়ায় সংগ্রাম পরিষদ গঠন করেন। মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করে বিভিন্ন ক্যাম্পে ট্রেনিংয়ে পাঠান। রাজাকার আলবদরদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। স্বাধীনতার পর কক্সবাজার মহকুমা কৃষকলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। পরে কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সদস্য নির্বাচিত হন। বাকশাল গঠিত হলে কেন্দ্রীয় পলিট ব্যুরো সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। দীর্ঘ ১৩ বছর জেলা আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। শেখ হাসিনাকে কারামুক্ত করতে কক্সবাজার জেলায় গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করেন। মরহুম নুরুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে পেকুয়া উপজেলার বৃহত্তর মগনামা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর এবং প্রিয়ভাজন কর্মী ছিলেন।

কক্সবাজার জেলা থেকে প্রথম প্রকাশিত সাপ্তাহিক পত্রিকা সাপ্তাহিক স্বদেশবাণী এবং সরকারি অনুমোদনপ্রাপ্ত কক্সবাজারের প্রথম সংবাদপত্র দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকার সম্পাদক। এছাড়া বঙ্গবন্ধু পরিষদ কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশন কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

এদিকে তাঁর বড় সন্তান মোহাম্মদ মুজিবুল ইসলাম কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক। মেঝ সন্তান নজিবুল ইসলাম কক্সবাজার পৌর আওয়াামী লীগের সভাপতি, কনিষ্ঠ সন্তান ড. আশরাফুল ইসলাম সজিব জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক। বড় কন্যা আশরাফ জাহান কাজল জেলা পরিষদের সদস্য ও মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী। কনিষ্ঠ কন্যা ফাতেমা জাহান উজ্জ্বল বাহারছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষিকা। মরহুমের ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য, স্বাধীন বাংলাদেশে কক্সবাজার জেলার সাবেক গভর্ণর এডভোকেট জহিরুল ইসলাম গত বছর ইন্তেকাল করেন। এর আগে মারা গেছেন মরহুমের কনিষ্ঠ ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা এডভোকেট নজরুল ইসলাম।

মোহাম্মদ নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

এছাড়া সদর-রামু আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সাংসদ জাফর আলম, মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক, উখিয়া-টেকনাফ আসনের সাংসদ শাহিন আকতার, সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ কানিজ ফাতেমা মোস্তাক, কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাবেক সাংসদ ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির মৎস্যজীবি বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান কাজল, কক্সবাজার প্রেসক্লাব ও কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু তাহের, বিএফইউজের কেন্দ্রীয় সদস্য এডভোকেট আয়াছুর রহমান, কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাাদক জাহেদ সরওয়ার সোহেল, কক্সবাজার ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আহসান সুমন ও সাংবাদিক ইউনয়ন এবং প্রেসক্লাবের নির্বাহী কমিটির সকল সদস্যসহ অসংখ্য রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কক্সবাজারের সাংবাদিকদের প্রতিকৃৎ মোহাম্মদ নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।