সাকিবের প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে কলকাতার রোমাঞ্চকর জয়

উইকেট পাওয়ার পর সাকিবকে ঘিরে সতীর্থদের উল্লাস। ছবি: সংগৃহীত

ক্রীড়া ডেস্ক : বলটা লেগসাইডে ঠেলে দিয়েই দৌড় শুরু করলেন কেন উইলিয়ামসন, কিন্তু বোলিং প্রান্ত থেকে বোলার সাকিব আল হাসান দৌড়ালেন আরো দ্রুত। বলটা কুড়িয়ে বোলিং প্রান্তে যখন ভেঙ্গে দিয়েছেন স্টাম্প, দাগ থেকে উইলিয়ামসনের ব্যাটের দূরত্ব তখনও কয়েক ইঞ্চির দূরত্বে।

সাড়ে পাঁচমাস পর কলকাতা নাইট রাইডার্স একাদশে ফিরে ব্যাটিং করার সুযোগ না পেলেও কিপটে বোলিংয়ের সাথে এই দুর্দান্ত রানআউটটি যেন হয়ে রইল সাকিবের প্রত্যাবর্তনের বিজ্ঞাপন। পেয়েছেন একটি উইকেটও। সাকিব ও অন্যান্য বোলারদের নৈপুণ্যে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে মাত্র ১১৫ রানে আটকে দিয়ে ৭ উইকেটের বড় জয় তুলে নিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। ব্যাট হাতে শুভমান গিল করেছেন ফিফটি। এই জয়ে আইপিএলের শেষ চারের দিকে আরেক পা বাড়াল শাহরুখ খানের দল।

টসে জিতে ব্যাটিং নিলেও মন্থর উইকেটে কলকাতার বোলারদের সামনে হাঁসফাঁস করেছে হায়দ্রাবাদের ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ওভারেই দলীয় ১ রানে টিম সাউদির ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিতে এলবিডাব্লিউ হয়ে ফেরত যান ঋদ্ধিমান সাহা; যদিও পরে দেখা গেছে যে আসলে আউট হতেননা, কিন্তু রিভিউ নেননি ঋদ্ধিমান। আরেক ওপেনার জেসন রয়ও ১০ রান করে সাজঘরে ফিরে যান শিভাম মাভির বলে সাকিব, বরুণ চক্রবর্তী ও সুনীল নারাইন- এই তিন স্পিনারের ১২ ওভারে মাত্র ৪.৩৩ গড়ে রান নিতে পেরেছে হায়দ্রাবাদ, খুইয়েছে প্রিয়ম গর্গ, অভিষেক শর্মা আর জেসন হোল্ডারের তিনটি উইকেট। এছাড়াও সাকিব করেছেন উইলিয়ামসনকে রানআউট। ৪ ওভার বল করে ২০ রান দিয়ে অভিষেকের উইকেটটিও নিয়েছেন সাকিব।

১১৬ রানের মামুলি টার্গেটেও অবশ্য জয়ের জন্য শেষ ওভার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় কলকাতাকে। দ্বিতীয় ইনিংসে আরো মন্থর হয়ে যায় উইকেট। একপ্রান্তে ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার ভিড় দেখতে দেখতে হাল ধরে রাখেন শুভমান গিল। ৫১ বলে ৫৭ রানের ধৈর্যশীল ইনিংস খেলে যখন ফেরত যান গিল, ততক্ষণে জয়ের ভিত তৈরি হয়ে গেছে কলকাতার। নিতিশ রানা ২৫ করে বিদায় নিলেও দিনেশ কার্তিক ও অধিনায়ক ইয়ন মরগানের হাত ধরে জয়ের বন্দরে পৌঁছায় কলকাতা।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।