উখিয়ায় ৫ ইউপিতে ৩৯২ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার ইরফান উদ্দিনের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করছেন রাজাপালং ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। এসময় উখিয়া-টেকনাফের সাবেক সংবাদ আবদুর রহমান বদি উপস্থিত ছিলেন।

নিজস্ব প্রতিনিধি : আসন্ন দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার ৫ ইউনিয়নে ২৯২ জন প্রার্থী রিটার্নিং অফিসারের নিকট মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) মনোনয়পত্র দাখিলের শেষ দিনে উখিয়ায় ৫ ইউনিয়নে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ৫জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী ৫জন ছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ২৬জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৫৭জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৯৯ জন মনোনয়ন দাখিল করেছেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার ইরফান উদ্দিন।

তৎমধ্যে রাজাপালং নৌকা প্রতীকের ১জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা ১জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ২জন। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮জন, সাধারণ সদস্য পদে ৬২জন।

জালিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদে নৌকা প্রতীকের ১জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা ১জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ৯ জন। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৪জন, সাধারণ সদস্য পদে ৫১জন।

পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদে নৌকা প্রতীকের ১জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা ১জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ৫ জন। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৩জন, সাধারণ সদস্য পদে ৬৮জন।

হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদে নৌকা প্রতীকের ১জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা ১জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ৭ জন। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৪ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৭১জন।

রত্নাপালং ইউনিয়ন পরিষদে নৌকা প্রতীকের ১ জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা ১ জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ৩ জন। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৪৭জন।

মনোনয়নপত্র দাখিল শেষে নিজের জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী দাবি করে রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জনগণ তাকে আবারো বিপুল ভোটে জয়ী করবেন।

রাজাপালং ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাদমান জামী চৌধুরী বলেন, সুস্থ অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে ৭৫% ভোট পেয়ে তিনি নির্বাচিত হবেন৷

পালংখালী ইউনিয়নের নৌকা প্রার্থী এম এ মঞ্জুর বলেন, উন্নয়নের প্রতীক নৌকা নিয়ে তিনি এবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন।

পালংখালী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী এম গফুর উদ্দিন চৌধরী বলেন, তিনি দীর্ঘিদন যাবৎ চেয়ারম্যান হিসেবে নয়, জনগণের খাদেম হিসেবে কাজ করে গেছেন। জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থনের মধ্যদিয়ে তিনি আবারো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন বলে শতভাগ আশাবাদী।

রত্নাপালং ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী নুরুল হুদা বলেন সকল লোভ লালসান উর্ধে উঠে জনগণ তাকে ভোট দেবেন৷

এভাবে প্রত্যেক প্রার্থী জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করতে দেখা যায়।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্ণিং কর্মকর্তা ইরফান উদ্দিন বলেন মনোনয়নের শেষ দিন পর্যন্ত ৫ ইউনিয়নে ৩৬জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হিসেবে ৫৭জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৯৯জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

তিনি আরো বলেন, আগামী ২১ অক্টোবর মনোনয়ন যাচাই-বাছাই ২১ অক্টোবর, আপিল ২৪ অক্টোবর, প্রত্যাহার ২৭ অক্টোবর এবং ভোট গ্রহণ ১১নভেম্বর।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।