তাইজুলের ঘূর্ণিতে বাংলাদেশ সুবিধাজনক অবস্থানে

ছবি : ক্রিকইনফো

রাইজিং কক্স ডেস্ক :
ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের প্রথম সেশন শেষ হলো। দুই স্পিন তারকা সাকিব আর তাইজুলের সৌজন্যে পাকিস্তানকে চাপে রেখেছে টিম টাইগার। প্রথম সেশনেই তাইজুল তুলে নিয়েছেন দুই উইকেট। আরেক ডানহাতি স্পিনার মেহেদি মিরাজকে এখনও বোলিংয়ে আনা হয়নি। যার সম্ভাব্য কারণ হলো- ক্রিজে থাকা দুই ব্যাটারই ডানহাতি। মধ্যাহ্ন বিরতির আগে পাকিস্তানের দলীয় সংগ্রহ ৭৮ রান।

টস হেরে ফিল্ডিংয়ে নামা বাংলাদেশের হয়ে নতুন বলে শুরু করেন এবাদত হোসেন। পঞ্চম বলটি থার্ডম্যান দিয়ে সীমানাছাড়া করে রানের খাতা খোলেন আবিদ আলী। অন্যাপ্রান্ত থেকে বোলিং করা খালেদ আহমেদ মেডেন ওভার দিয়ে শুরু করেন। সকাল থেকেই মেঘলা আকাশ। বেশ ঠাণ্ডাও আছে। সূর্য ওঠার কোনো লক্ষণ নেই। ঢাকা টেস্ট শুরুর ৩৫ মিনিটের মাঝেই আকাশ আরও মেঘলা হয়ে যায়। আলো কমে আসে। তাই সকালবেলাতেই মিরপুর শেরে বাংলায় জ্বলে ওঠে ফ্লাডলাইট। ১০ম ওভারেই সাকিবকে দিয়ে শুরু হয় স্পিন আক্রমণ। ১৬তম ওভারে আসাদ শফিকের বিপক্ষে লেগ বিফোরের জোরালো আবেদন হয়। আম্পায়ার নাকচ করলে রিভিউ নেয় বাংলাদেশ। তবে সেটা ব্যর্থ হয়। বোলার ছিলেন সাকিব।

প্রথম সাফল্যের জন্য টাইগারদের অপেক্ষা করতে হয়েছে সোয়া ঘণ্টার মতো। ইনিংসের ১৯তম ওভারে আব্দুল্লাহ শফিককে বোল্ড করে দেন তাইজুল ইসলাম। ৫০ বলে ২ চার ১ ছক্কায় শফিকের সংগ্রহ ২৫ রান। এর সাথেই ভাঙে পাকিস্তানের ৫৯ রানের ওপেনিং জুটি। উইকেটে আসেন আজহার আলী। তাইজুলের ফিরতি ওভারে আজহারের বিরুদ্ধে কট বিহাইন্ডের আবেদন আম্পায়ার নাকচ করলে ফের রিভিউ নেয় বাংলাদেশ। আল্ট্রা এজে সামান্য স্পাইক দেখা গেলেও অনেকক্ষণ পর আম্পায়ার কল হিসেবে রিভিউ খারিজ করেন তৃতীয় আম্পায়ার।

তাইজুলের হাত ধরে আসে দ্বিতীয় সাফল্য। ২৫তম ওভারে আবিদ আলীকে বোল্ড করে দিয়েছেন এই স্পিনার। ৮১ বলে ৬ চারে ৩৯ রান করে ফিরেন আবিদ। ৭০ রানে পতন হয় দ্বিতীয় উইকেটের। আজহারের সঙ্গে যোগ দেন অধিনায়ক বাবর আজম। তাইজুলকে চার মেরে বাবর রানের খাতা খোলেন। এর মাধ্যমে ৩৮ বল পর রান পেল পাকিস্তান! মধ্যাহ্ন বিরতির আগে অতিথিদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৭৮ রান।

ঢাকা টেস্টে চোট কাটিয়ে দলে ফিরেছেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের ৯৯তম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হতে যাচ্ছে মাহমুদুল হাসান জয়ের। সাদমান ইসলামের সঙ্গে তাকেই ওপেনিংয়ে দেখা যাবে। প্রায় আড়াই বছর পর দলে ফিরেছেন পেসার খালেদ আহমেদ। সাইফের পাশাপাশি বাদ পড়েছেন আবু জায়েদ এবং চট্টগ্রাম টেস্টে অভিষিক্ত ইয়াসির আলী। তবে টেস্ট স্কোয়াডে থাকলেও পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় একাদশে নেই তাসকিন আহমেদ। অন্যদিকে চট্টগ্রাম টেস্টের একাদশ নিয়েই নেমেছে পাকিস্তান। উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে ৮ উইকেটে হেরে গেছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ একাদশ : মুমিনুল হক (অধিনায়ক), সাদমান ইসলাম, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, লিটন কুমার দাস, সাকিব আল হাসান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, খালেদ হোসেন, এবাদত হোসেন।

পাকিস্তান একাদশ : আবিদ আলী, আব্দুল্লাহ শফিক, আজহার আলী, বাবর আজম (অধিনায়ক), ফাওয়াদ আলম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ফাহিম আশরাফ, নুমান আলী, হাসান আলী, সাজিদ খান, শাহিন শাহ আফ্রিদি।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।