শুভ জন্মদিন কমরেড কালাম আজাদ

কল্লোল দে চৌধুরী

একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে আমার প্রাণপ্রিয় দাদু সতীশ চন্দ্র দে ( মহাজন) কে পাক হানাদার বাহিনী নির্মম নির্যাতন করে হত্যা করে। দাদুকে হত্যার ৮ বছর পরে আমার জন্ম। প্রিয় মানুষটিকে দেখার সৌভাগ্য আমার হয়নি। যে মানুষটিকে ভালোবেসে সবাই মহাজনি মহাজন বলে ডাকতো। অথচ কক্সবাজারের বিজয় মেলা সহ বড় বড় মঞ্চে শহীদ সতীশ মহাজনের নাম উচ্চারণ করেনি। আমার পরিবারকে শহীদ পরিবার বলে স্বীকৃতি দেয়নি। কালের পরিক্রমায় দিন মাস বছর অতিক্রান্ত হয়েছে। এরি মধে এই তো সেই দিন আমার প্রাণের ছোট ভাই, কবি গবেষক কালাম আজাদ তার গবেষণালব্ধ লেখায় ও বইয়ে পাকিস্তান আমলের জমিদার খুরুষ্কুলের শহীদ সতীশ মহাজন বলে আমার জীবন কাহিনি তোলে ধরেছে৷। রাজাকারনামাসহ তার কয়েকটি লেখা ও বইয়ে আমার দাদুর জীবনী রয়েছে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে। বইগুলো পড়ে তাকে কি দিয়ে পুরুষ্কৃত করবো বুঝতে পারিনি। শুধু মনের অজান্তেই তাকে সহযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছি। যেভাবে মনে ঠাঁই নিয়েছে অকাল প্রয়াত কবি ও ছাত্র ইউনিয়নের নেতা মাসউদ শাফি। ছাত্র ইউনিয়ন নেতা জমিদার পুত্র তাহানুন বশির রানা, বিনে চিকিৎসায় মারা যাওয়া দেলোয়ার হোসেন জয়, চিতার অনলে ভষ্ম হওয়া শিল্পী আবীর ভট্টাচার্য।
৩৬ জন্মদিনে কবি কালাম আজাদকে লাল সালাম ও শুভ কামনা করছি।
গবেষক কালাম আজাদ সূর্যমুখী ফুল হও তুমি। সূর্যোলোকে মুখ তোলে তাকাও। রঙধনুর মতো রাঙ্গায়িত হোক তোমার জীবন।
শুভ জন্মদিন কমরেড কালাম আজাদ।

রাইজিংকক্স.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।